প্রত্যয়ের কবিতা ‘বাসন্তীর রঙ’

পবিত্র কুমার মাহাতো (প্রত্যয়) | পাঠক কলাম
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল ২০২১ | ১০:০৪:০২ পিএম
প্রত্যয়ের কবিতা ‘বাসন্তীর রঙ’
বাসন্তীর রঙ
পবিত্র কুমার মাহাতো (প্রত্যয়)


আজ তাহার গায়ে সাদা শাড়ি, কপালে কালো টিপ,
চুলগুলো উসকোখুসকো হয় উড়ছে বাতাসে।
চোখের কাজলটা কি  নিদারুণ সুন্দর করে তুলেছে চোখদুটোকে!!
গলায় শোভা পেয়েছে বাহারি রঙের পুঁথির মালা।

আজ প্রকৃতি যেন তাহার আলতা রঙা পায়ের নুপুরের ঝুম ঝুম শব্দে আন্দোলিত
বাসন্তীর মোহিনী শুভ্রতা ছড়িয়ে পড়ছে আজ বসন্তের বাতাসে।
তাহার মায়াবী মুখখানা দেখতেই হৃদয়ে তোলপাড় শুরু হয়ে গেল।
বসন্তের এই রোদেলা দুপুরে এক টুকরো প্রশান্তি নিয়ে, সে যেন উপস্থিত হয়েছে।

দোলযাত্রা'র রঙ খেলা সবে শুরু হয়েছে।
চারিদিকে চলছে আনন্দ, হৈ-হুল্লোড়-
বাহারী রঙের রঙ নিয়ে মেতে উঠেছে নানান বয়সের মানুষ।
বাসন্তীর টুকটুকে গালে বাহারি রঙে রাঙিয়ে দিলাম আমার আঙুলের স্পর্শে।-

যখন কারো বদনে রঙ লাগে, তখন তাকে দেখে বুঝার উপায় থাকে না, সে বর্ণে কৃষ্ণ নাকি শুভ্র।
জগতে যে রূপের এতো বড়াই তা যেন, এক মুহূর্তের জন্য বিলীন হয় যায়।
ভেদাভেদ থাকে না সাদা-কালো'র মাঝে, সবই যেন মিলিত হয় এক বিন্দুতে এসে।
এ যেন সৃষ্টিকর্তার এক অমিয় বার্তা।

তাহার মুখ খানা দেখেও বুঝার উপায় নেই, এই সেই বাসন্তী।
সাদা শাড়ীখানা পরিনত হয়েছে রঙিন শাড়ীতে।
আমার সাদা পায়জামা-পাঞ্জাবিও সে মনের মতো করে রাঙিয়ে দিয়েছে।
বাসন্তীর রঙে রঙিন হয়ে,রূপের অহংকার যেন বিলীন হলো জগতের মাঝ থেকে।
এ যেন দোলযাত্রা'র মাধ্যমে পরম করুনাময়ের নিরব বার্তা।

পবিত্র কুমার মাহাতো (প্রত্যয়)
শিক্ষার্থী, সমাজকর্ম বিভাগ
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন