আত্রাইয়ে সমসপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে অতিরিক্ত বেতন আদায়ের অভিযোগ

একেএম কামাল উদ্দিন টগর, নওগাঁ প্রতিনিধি | বাংলা পত্রিকা স্পেশাল
প্রকাশিত: বুধবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০২০ | ০৩:২৮:৪৮ পিএম
আত্রাইয়ে সমসপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে অতিরিক্ত বেতন আদায়ের অভিযোগ
নওগাঁর আত্রাই সমসপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই করোনা কালিন বিদ্যালয়ের প্রায় ৭শ’ শিক্ষাথীর কাছ থেকে বেতনের সঙ্গে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থী-অভিভাবকরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী ওঅভিভাবক জানান, ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণী পযন্ত বেতন যথাক্রমে ৬০, ৭০, ১০০শ’ টাকা নির্ধারণ থাকলেও আদায় করা হচ্ছে অতিরিক্ত টাকা।

৬ষ্ঠ থেকে ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের কাছ  থেকে বিভিন্ন অজুহাতে বেতন ৫০০ টাকা থেকে ৭০০ টাকা আদায় করা হচ্ছে এবং ৯ম ও ১০ম শ্রেণীর শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ৮শ’ থেকে ১২শ টাকা নেয়া হচ্ছে।

পরীক্ষার খাতাসহ প্রশ্নপত্র ফটোকপির দোকান থেকে সংগ্রহ করলেও এ্যাসাইনমেন্ট পরীক্ষার নামেও প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে নেয়া হয় বিষয় প্রতি ২০ টাকা হারে। জমা নেয়া হয়নি বেতনসহ অন্যান্য ফি পরিশোধে ব্যর্থ শিক্ষাথীদের এ্যাসাইনমেন্ট খাতা। যে সকল শিক্ষার্থীরা গত (১৫ ডিসেম্বর) মঙ্গলবারের মধ্যে বেতনাদিনহ যাবতীয় ফি পরিশোধে ব্যার্থ তাদের উপরের ক্লাসে উন্নিত করা হবে না সাব জানিয়ে দেয় বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। অতিরিক্ত অথ আদায়ে গত মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদিকের কাছে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এ্যাসাইনমেন্ট খাতা জমা দিতে আসা বিদ্যালয়ের ২৫-৩০ জন শিক্ষার্থী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, বেতনের বাইরে অন্যান্য ফি দিতে অস্বীকৃতিরকারণে জমা দেয়া হয়নি তাদের এ্যাসাইনমেন্ট খাতা।

একজন শিক্ষার্থীর বাবা বলেন, এই স্কুলের অধিকাংশ শিক্ষার্থীর অভিভাবক নিম্ন আয়ের। কেউ দিনমজুরী করে আবার কেউ কেউ ভ্যানগাড়ি চালায়। এদের অনেকেরই ধার্যকৃত টাকা দেয়া সম্ভব না। করোনা কালীন এই সময় অনেকেই আয়-বানিজ্য নাই।

এ ব্যাপারে সমসপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ রফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, জানুয়ারী থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের বকেয়া বেতন আদায় করা হচ্ছে। যা নীতিমালার আলোকেই ছাত্র-ছাত্রীদের নিকট থেকে আদায় করা হচ্ছে। টিউশন ফি ছাড়া অতিরিক্ত কোন টাকা আদায় করা হচ্ছে না।

এ বিষয়ে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ শহিদুল ইসলাম মুঠো ফোনে বলেন, সরকারী নিয়ম অনুযায়ী টিউশন ফি নেওয়ার কথা, তবে এর বাহিরে অতিরিক্ত অর্থ আদায় করার বিষয় আমার জানা নাই।

এবিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কমকর্তা মোঃ আব্দুস ছালাম বলেন, বিষয়টি আমি জানলাম।  নীতিমালার বাহিরে স্কুল কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত অর্থ নেয়া হলে সরেজমিনে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এসআর/বাংলাপত্রিকা

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন