‘দাবী মোদের একটাই, ইছামতি নদীতে একডালায় ব্রিজ চাই’

মোঃ আঃ মান্নান, সাংবাদিক | পাঠক কলাম
প্রকাশিত: সোমবার, ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০ | ১২:২৪:০৯ এএম
‘দাবী মোদের একটাই, ইছামতি নদীতে একডালায় ব্রিজ চাই’
‘দাবী মোদের একটাই, ইছামতি নদীতে একডালায় ব্রিজ চাই।’ প্রায় দুই লাখ জনসংখ্যা অধ্যুষিত ধুনট ও কাজিপুর উপজেলাবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবী ইছামতি  নদীতে খাটিয়ামারী বাজার ও একডালায় প্রায় ৮’শ মিটার দীর্ঘ একটা ব্রিজ করে দেওয়া হোক।

বিভিন্ন মাধ্যমের দেওয়া তথ্যের এক হিসেবে জানা গেছে, খাটিয়ামারী থেকে সিরাজগঞ্জ সদরে আসতে যেতে খেয়া নৌকা পারাপারে বিভিন্ন পেশাজীবীর কম করে হলেও প্রতিদিন গড়ে প্রায় ২০ হাজার লোকজন যাতায়াত করে থাকেন। সাথে পরিবহন করা হয় মোটরসাইকেল, অন্যান্য মালামালসহ প্রভৃতি। এতে করে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৬০ হাজার টাকা থেকে ৭০ হাজার টাকা হিসেবে সারা বছরে কম করে হলেও প্রায় আড়াই কোটি টাকা খেয়া পারাপারে ভাড়া দিয়ে থাকেন এলাকার লোকজন। এই নৌপথে খেয়া পারাপারে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার, হাজার হাজার ছাত্রছাত্রী, হাটুরে লোকজন, ধুনট ও কাজিপুরের লোকজন যাতায়াত করে থাকেন। ভরা বর্ষায় অথবা দূর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার সময় এই নদী পারাপারে প্রায়শই অনাকাঙ্ক্ষিত দূর্ঘটনা ঘটে থাকে। সবদিক দিয়েই খাটিয়ামারী ও একডালা বহুল জন চলাচলের এই নৌ-খেয়ার ব্যবস্থা দীর্ঘকালীন জনদূর্ভোগ হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছে। তবে উভয় তীরে ব্রিজ সংযুক্ত হলে এই জনদূর্ভোগ অনেকাংশে কমে যেত।

২০১০ সালের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রতিশ্রুতির পর থেকেই অদ্যাবধি সময়ে এসেও সেই একই প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের কাছে উপজেলাবাসীর এই দাবীটি ক্রমশ জোরালো হয়ে উঠেছে। স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতৃত্ব দানকারী দল হিসেবে বরাবরই আওয়ামীলীগ সরকারের কাছে জনগণনের প্রত্যাশা বেশি থাকে। অভিশপ্ত ৭৫ পরবর্তী রাজনৈতিক পটপরিবর্তন পর থেকে দীর্ঘ চড়াই উৎরাই পেড়িয়ে ১৯৯৬ সালে যখন আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আরোহন করে তখন থেকে জনগণের মন মানসে বাস্তবিক কিছু প্রাপ্তির প্রত্যাশা জাগে। ধুনট ও কাজিপুর বাসির উন্নয়ন প্রত্যাশার দাবীদার হয়ে আছেন বছরের পর বছর ধরে। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী যখন দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় এসে সরকার গঠন করেন, তখন জনগনের মনে আশারআলো ফোটে।

মোঃ আঃ মান্নান, সাংবাদিক

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন