কাপাসিয়ায় ৪ শহীদের গণকবর সংরক্ষণের উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক | সারাদেশ
প্রকাশিত: সোমবার, ৬ জানুয়ারী ২০২০ | ১০:২৩:১৯ এএম
কাপাসিয়ায় ৪ শহীদের গণকবর সংরক্ষণের উদ্যোগ
গাজীপুরের কাপাসিয়া সদরের বরুন গ্রামে সমাহিত চার শহীদের গণকবর সংরক্ষণে উপজেলা প্রশাসন বিশেষ উদ্যোগ গ্রহন করেছেন।

রোববার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা: ইসমত আরা’র নেতৃত্বে শহীদদের সমাধিস্থল পরিদর্শণ করে এ সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ ও এলাকাবাসির তথ্য থেকে জানা যায়, ১৯৭১ সালের মহান স্বাধীণতা যুদ্ধ চলাকালীন আগস্ট মাসের কোন এক সময় স্থানীয় রাজাকারদের সহায়তায় পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী বরুন গ্রামের হিন্দু পরিবারের চার সদস্যকে গুলি করে হত্যার পর আগুনে পোড়ায়। তাদের মৃত্যু নিশ্চিত করে পাকবাহিনী চলে যাবার পর স্থানীয় ইসমাইল ভূঁইয়া, রহমত আলী ও সূর্যাকান্ত অন্যান্যদের সহযোগিতায় অধর চন্দ্র দাস ও তার পুত্র অনিল চন্দ্র দাস, সত্যানন্দ দাস ও তার ভাই নিত্যানন্দ দাসের ঝলসে যাওয়া লাশ মাটিচাপা দেয়। স্বাধীনতা পরবর্তী দীর্ঘদিন তাদের গণকবর অবহেলা ও অযত্নে পড়ে থাকলেও তৎকালীন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরোজ কুমার নাথ ও আনিসুর রহমান তা সংরক্ষণের উদ্যোগ গ্রহন করেন।

উপজেলা সদর ইউনিয়নের বরুন উচ্চ বিদ্যালয়ের পশ্চিম পাশে গণকবরটি তাদের বাড়ি সংলগ্ন বাঁশ ঝাড়ের নীচে অবস্থিত। গত ৩/৪ বছর আগে প্রথম দফায় ইটের দেয়াল দিয়ে ঘেরাও করা হয়। ওই সময় তাতে শহীদদের পরিচিতি নামফলক লাগানো হলেও রাতের অন্ধকারে কে বা কারা তা নষ্ট করে ফেলে।

এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা: ইসমত আরা জানান, গণকবর সম্পর্কে আগে জানা ছিল না। বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর রোববার দুপুরে তা সরেজমিনে পরিদর্শণ করেছেন। তরগাঁওয়ের আরেকটি গণকবরসহ তা সংরক্ষণ ও সংস্কারের জন্য ইতিমধ্যে এলজিইডি’র আর্থিক সহায়তা চাওয়া হয়েছে।

এসময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত বরুন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাধন চন্দ্র দাস, উপজেলা মহিলা সংস্থার সমন্বয়কারী এমরান, সাংবাদিক সঞ্জীব কুমার দাস, এফ এম কামাল হোসেন, শাকিল হাসান, শিক্ষক মতিউর রহমান প্রমূখ।

বাংলাপত্রিকা/এসআর

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন