বিদায় ২০১৯, বরণ নতুন বছর ২০২০

মোহাম্মদ হাবিব উল্লাহ | পাঠক কলাম
প্রকাশিত: বুধবার, ১ জানুয়ারী ২০২০ | ০৮:৩৭:০০ এএম
বিদায় ২০১৯, বরণ নতুন বছর ২০২০
বিদায় নিচ্ছে ২০১৯। বিদায়ী বছর কেমন গেল-এ প্রশ্নের উত্তর সংক্ষিপ্ত কলেবরে তুলে ধরা সম্ভব নয়। আমার মতে, সকল প্রকার সমস্যা-সঙ্কট নেতিবাচকতাই মানবাধিকারে প্রভাব ফেলে। যদিও মানবাধিকারের চিত্র সময়ের ফ্রেমে বাঁধা যায় না। তবে একটি সমীক্ষায় ২০১৯ সালের মানবাধিকারের যে চিত্র উঠে এসেছে তা ভীষণ উদ্বেগের। ২০১৯ সালে প্রতিদিন গড়ে একজন বিচারবহির্ভূত হত্যা ও হেফাজতে মৃত্যুর শিকার হয়েছেন।

অনেক ক্ষেত্রেই উন্নয়নের উচ্ছ্বাস গণতন্ত্রকে গ্রাস করেছে। আর গণতন্ত্রের সঙ্কটের কারণেই মানবাধিকার রাষ্ট্রীয় বিবেচনায় ঠাঁই পায়নি। যার কারণে ঘটেছে নাগরিকের মানবাধিকার লঙ্ঘনের নানা ঘটনা। বছর শুরু হয়েছিল নাগরিকের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগ করতে না পারার ব্যথা নিয়ে। নিজের ভোট নিজে না দিতে পারা মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন বলেই সবাই মনে করে। এরই ধারাবাহিকতায় সারাবছর জুড়ে, সারাদেশে অব্যাহতভাবে ঘটেছে মানবাধিকার লঙ্ঘনের নানা ঘটনা। আমরা দেখেছি, ভোট দেয়াকে কেন্দ্র করে সুবর্ণচরে ধর্ষণের ঘটনা। দেখেছি নুসরাত, আবরার, রিফাত খুনের মধ্য দিয়ে মানবাধিকারের নৃশংস লঙ্ঘন। দেখেছি, রিফাত হত্যাকান্ডের প্রধান আসামি নয়ন বন্ডকে 'বন্দুকযুদ্ধে' হত্যা করে মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘনের ঘটনা।

নাগরিকের জান-মালের নিরাপত্তা বিধান রাষ্ট্রের অন্যতম প্রধান দায়িত্ব। মানবাধিকারের এই অনিবার্য বিষয়টি নানাভাবে লঙ্ঘিত হয়েছে। গুম, খুনের প্রকোপ ছিল বছর জুড়ে। প্রায় প্রতিটি ক্ষেত্রে আইনের শাসন প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। মানবাধিকার হয়েছে দুর্বল। এ থেকে উক্তরণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আস্তা ও বিশ্বাস রয়েছে আমাদের। তরুণ প্রজন্মের কাছে ইয়াবা কারবারি এবং দেশের সমস্ত কিছু দুর্নীতি  থেকে মুক্তি চাই সকলেরই প্রত্যাশা নতুন বছরের। এর ধারাবাহিকতা নতুন বছরের সকলকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।       

মোহাম্মদ হাবিব উল্লাহ, সাংবাদিক

পাঠক কলামের কোন লেখার বিষয়ে পত্রিকা কর্তৃপক্ষ কোন দায় নিবে না। লেখক তার নিজের লেখার জন্য সম্পূর্ণ দায়ভার গ্রহণ করবেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন