দক্ষিণী সুপারস্টারদের পারিশ্রমিক কত?

এ.আই রাজ | পাঠক কলাম
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৩০ এপ্রিল ২০১৯ | ০৯:১০:৩৯ এএম
দক্ষিণী সুপারস্টারদের পারিশ্রমিক কত?
দক্ষিণ ভারতের সিনেমা মানেই বিশাল সেট, বড় বাজেট, ড্রামা ও অ্যাকশনে ভরপুর। তামিল, তেলেগু, মালায়ালম, কন্নড় ছবিগুলো পুরো বিশ্বে আলাদা যায়গা করে নিয়েছে সিনেমা প্রেমিদের মনে। দক্ষিণের অনেক তারকা বলিউডের অনেক নামি অভিনেতার চাইতেও বেশি আয় করেন। জেনে নিন জনপ্রিয় এসব তারকার আয় সম্পর্কে।

বিজয় দেভেরাকন্দ: অর্জুন রেড্ডি এবং গীতা গোবিন্দম এই দুটি ব্লকবাস্টারের পরে প্রতি সিনেমায় ১০ কোটি টাকা পারিশ্রমিক নেন বিজয় দেভেরাকন্দ।

রাম চরণ: জনপ্রিয় তেলেগু অভিনেতা চিরঞ্জীবী’র পুত্র রাম চরণ। বাবার পদচিহ্ন অনুসরণ করে তেলেগু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন এই অভিনেতা। তিনি দুইটি অন্ধ্র প্রদেশ রাজ্য নন্দী পুরষ্কার, দুইটি ফিল্মফেয়ার পুরস্কার দক্ষিণ, দুটি সিনেমা এওয়ার্ডস এবং একটি সন্তোষম সেরা অভিনেতা পুরষ্কার পেয়েছেন। তার ক্যারিয়ার এ মাগাধীরা, অরেঞ্জ, নায়ক, জাঞ্জির, ইয়েভাদু, ধ্রুব, রাঙ্গালাস্তাম এর মতো ছবি ব্যবসাসফল ছবি করেছেন।তেলেগু সুপার স্টার রাম চরণ প্রতি ছবিতে ১২ থেকে ১৭ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন।

আল্লু অর্জুন: ভারতীয় তেলেগু ভাষী চলচ্চিত্রের একজন শক্তিমান অভিনেতা। পারাগু ও ভিদাম ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি দুইটি ফিল্মফেয়ার সেরা তেলেগু অভিনেতা পুরষ্কার এবং আরিয়া ও পারাগু এর জন্য দুইটি নন্দী বিশেষ জ্যুরি পুরষ্কার পেয়েছেন। তিনি গান্ত্রোত্রী চলচ্চিত্রে অভিনয় করে সিনেমা এ্যাওয়ার্ডের সেরা নবাগত পুরষ্কার জিতে নেন। এই অভিনেতা আরিয়া, আরিয়া ২, বান্নি, রেইস গুররাম, সন অফ সত্যমূর্তী, সারাইনোডু, দুভভাডা জগন্নাধাম, "না পেরু সুরিয়া, না ইল্লু ইন্ডিয়া" এর মতো অনেক জনপ্রিয় ছবি তার ক্যারিয়ার এ উপহার দিয়েছেন। প্রতিটি সিনেমায় ১৪ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নেন আল্লু অর্জুন।

কমল হাসান: ষাটের দশক থেকে চলচ্চিত্রে অভিনয় শুরু করেছিলেন কমল হাসান। তামিল, তেলেগু, কান্নাড়া, মালায়ালাম ও হিন্দি ভাষায় এ পর্যন্ত তিনি প্রায় ২০০টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। ছবি প্রতি ২৫ থেকে ৩০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নেন তিনি। এছাড়া পরিচালনা ও চিত্রনাট্য লেখার জন্য আলাদা অর্থ নেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা।

ধনুশ: অভিনয়ের পাশাপাশি ধানুশ প্লেব্যাক গায়ক ও প্রয়োজক হিসেবে পরিচিত। ২০১১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘আদুকালাম’ ছবিতে অসাধারণ অভিনয়ের জন্য সেরা অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কার লাভ করেন ধনুশ। 'হোয়াই দিজ কোলাভেরি' দি গানের মাধ্যমে ধনুশ আন্তর্জাতিক পরিচয় লাভ করেন। এটাই কোন ভারতীয় গান যা ইউটিউবে সর্বপ্রথম ১০০০ লাখ বার দেখা হয়েছে। এই অভিনেতা প্রতি ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি ১০ থেকে ১৫ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নেন।

নাগার্জুনা: তেলেগু, বলিউড, তামিলসহ প্রায় নব্বইটিরও বেশী ছবিতে অভিনয় করেছেন নাগার্জুন। এ পর্যন্ত ফিল্মফেয়ার পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরষ্কার জিতে নিয়েছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা। এই অভিনেতার ঝুড়িতে ও রয়েছে ডন, মানাম, সুপার, হ্যালো ব্রাদার, কিং, শিবা , রাঙ্গাদা, কিং নাম্বার ওয়ান, দেবাদাস'সহ অসংখ্য ছবি। প্রতি ছবিতে কাজের জন্য ৭ থেকে ১০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নেন এই তারকা।

সুরিয়া: ভারতীয় নারীদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় অভিনেতা সুরিয়া শিবকুমার। এ পর্যন্ত ‘নান্দা’, গজনী, অয়ন, ‘সিঙ্ঘাম’সহ অসংখ্য ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছেন সুরিয়া। ছবি প্রতি তাঁর পারিশ্রমিক ২০ থেকে ২৫ কোটি রুপি। এছাড়া চলচ্চিত্রে ডাবিং করার জন্য তিনি ৫ কোটি রুপি নেন।

বিক্রম: দক্ষিণের সিনেমার সবচাইতে ধনী তারকাদের একজন হলেন তামিল অভিনেতা বিক্রম।  ১৯৯০ সালে চলচ্চিত্রে পা রাখা এই অভিনেতা এ পর্যন্ত বহু পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। এ পর্যস্ত তিনি স্যামী, আই, দেইভা তিরুমাগাল, সেতু, রাবণন এর মতো অনেক ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছেন। ছবি প্রতি তাঁর পারিশ্রমিক ১২ থেকে ১৫ কোটি রুপি।

মহেশ বাবু: তেলেগু ছবির অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা মহেশ বাবু। ১৯৯৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘রাজাকুমারুদু’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে আলোচনায় আসেন মহেশ। তিনি তার ক্যারিয়ার এ পোকিরি, বিজনেসম্যান, আগাদু, শ্রীমানথুডু, ব্রামোটসাভাম, স্পাইডার এর মতো অনেক ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছেন।
গতবছর তাঁর অভিনীত ছবি ‘ভারত আনে নেনু’ ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। জানা যায়, ‘ভারত আনে নেনু’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য মহেশ ১৮ কোটি রুপি নিয়েছিলেন। ছবি প্রতি সাধারণত ১৬ থেকে ২০ কোটি রুপি নেন এই অভিনেতা।

প্রভাস: ২০০২ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘ঈশ্বর’ ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে পা রাখেন প্রভাস। এরপর একে একে বহু ব্যবসাসফল ছবি উপহার দেন।এ পর্যন্ত ডার্লিং, মিস্টার পারফেক্ট, র‌্যাবেল, বিল্লা  ছত্রপতি, মুন্না'সহ অসংখ্য ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছেন প্রভাস। তাঁর ক্যারিয়ার সেরা ছবি ‘বাহুবলি’ ও ‘বাহুবলি ২’। ছবিগুলো ভারতের চলচ্চিত্র ইতিহাসে সর্বোচ্চ ব্যবসাসফল ছবির মধ্যে অন্যতম। সম্প্রতি বলিউডের একটি ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি ৮০ কোটি রুপি চেয়েছিলেন। সাধারণত ছবি প্রতি ২০ থেকে ৩০ কোটি রুপি করে নেন জনপ্রিয় এই তারকা।

জুনিয়র এনটিআর: ভারতীয় ‘কুচিপুড়ি’ নাচের উপর বিশেষ দক্ষ অভিনেতা জুনিয়র এন টি আর। এ পর্যন্ত তিনি প্রায় ২৭টি ছবিতে অভিনয় করেছেন। এ পর্যন্ত জয় লাভ খুশা, টেম্পার, জনতা গ্যারেজ,  বাদশা, স্টুডেন্টস নাম্বার ওয়ান, সাম্বা'সহ
অসংখ্য ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছেন জুনিয়র এনটিআর। প্রতি ছবিতে কাজের তারতম্যের ভিত্তিতে ১৮ থেকে ২০ কোটি রুপি পারিশ্রমিক নেন জুনিয়র এনটিআর।

রজনীকান্ত: সত্তরের দশক থেকে চলচ্চিত্রে অভিনয় করে চলেছেন সুপারস্টার রজনীকান্ত। দক্ষিণ ভারতের সবচাইতে ধনী তারকাদের একজন হলেন রজনীকান্ত। তিনি চলচ্চিত্র জগতে অভিষেক করেন, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত তামিল সিনেমা অপূর্ব রাগাঙ্গাল (১৯৭৫) এ অভিনয়ের মাধ্যমে। এ পর্যন্ত তিনি অসংখ্য হিন্দি, তেলেগু, কান্নাড়া, ও ইংরেজি ছবিতে অভিনয় করেছেন। দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বেশী পারিশ্রমিক প্রাপ্ত অভিনেতাদের একজন তিনি। বর্তমানে ছবি প্রতি ৫০ থেকে ৬০ কোটি রুপি নেন রজনীকান্ত।

বিজয়: দক্ষিণি ছবির সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক প্রাপ্ত অভিনেতাদের একজন জোসেফ বিজয়। তাঁর বাবা বিখ্যাত তামিল ছবির পরিচালক ও প্রযোজক এস এ চন্দ্রশেখর। ২০০৪ সালে ‘গিলি’ ছবিতে অভিনয় করে দারুণ প্রশংসা কুড়ান বিজয়। সে সময় ছবিটি অনেক ব্যবসাসফল ছবির মর্যাদা পায়। প্রতি ছবিতে বিজয়কে ২৫ থেকে ৩৫ কোটি রুপি পর্যন্ত দিতে হয়।


অজিত: তামিল ছবির অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা অজিত কুমার। ১৯৯৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘আসাই’ ছবির মাধ্যমে দ্রুত জনপ্রিয়তা লাভ করতে থাকেন এই অভিনেতা। সম্প্রতি তিনি ‘বেধেলাম’, ‘ইয়েন্না অরিন্ধল’এর মতো ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়ে তামিল ছবির সেরা তারকাদের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছেন। অজিতের ছবি প্রতি পারিশ্রমিক ২০ থেকে ৩০ কোটি রুপি।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন