ধর্ষণের বিচারের আইন ও শাস্তি

আসিফ আহম্মেদ (দিগন্ত), রাবি প্রতিনিধি | পাঠক কলাম
প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯ | ০৭:২৬:৫৬ পিএম
ধর্ষণের বিচারের আইন ও শাস্তি
বাংলাদেশের আইনে ধর্ষণের শাস্তি হিসাবে মৃত্যুদন্ড, যাবজ্জীবন ও সশ্রম কারাদন্ডের মত কঠিন শাস্তির বিধান থাকলেও এসব আইনেরই ফাক ফোঁকড় গলিয়ে ধর্ষকেরা ঘুরে বেড়াচ্ছে জনসম্মুখ্যে। আবার আমরা একপক্ষ জানিই না ধর্ষণের বিচার আইন এবং এবং শাস্তি সম্পর্কে। এসব না জানার কারনে অনেকেই হয়ত ধর্ষণের মত নির্লজ্জ কাজ করে আসছে।
 
ধর্ষণের বিচারে আইন ও সজ্ঞা:
নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী-২০০৩) ধারা ৯-এর ১-এর ব্যাখায় বলা হয়েছে, যদি কোন পুরুষ বিবাহবন্ধন ছাড়া ১৬ বছরের অধিক বয়সের সম্মতি ব্যতিরেকে বা ভীতি প্রদর্শন বা প্রতারণামূলকভাবে তার সম্মতি আদায় করে অথবা ১৬ বছরের কম বয়সের কোন নারীর সঙ্গে তার সম্মতিসহ বা সম্মতি ব্যতিরকে যৌন সঙ্গম করেন, তাহলে তিনি ওই নারীর ধর্ষণ করেছেন বলে গণ্য হবে।

ধর্ষণকারীর জরিমানা ও শাস্তি:
নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশোধনী-২০০৩)-এর ধারা ৯-তে বলা হয়েছে- যদি কোন পুরুষ কোনো নারী বা শিশুকে ধর্ষণ করেন তাহলে তিনি যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত হবেন এবং অতিরিক্ত অর্থদন্ডেও দন্ডিত হবেন।

কোন ব্যক্তি কর্তৃক ধর্ষণ বা ধর্ষণ পরবর্তী অন্যবিধ কার্যকলাপের ফলে ধর্ষিত নারী বা শিশুর মৃত্যু ঘটে, তাহলে ওই ব্যক্তি মৃত্যুদন্ডে বা যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং অর্থদন্ডে দন্ডিত হবেন।
দলবদ্ধভাবে কোনো নারী বা শিশুকে ধর্ষণ করলে এবং ধর্ষণের ফলে ওই নারী বা শিশুর মৃত্যু ঘটে বা আহত হলে তাহলে প্রত্যেকে মৃত্যুদন্ড বা যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও অর্থদন্ডে দন্ডিত হবেন।
কোন নারী বা শিশুকে ধর্ষণ করে মৃত্যু বা আহত করার চেষ্টা করেন, তাহলে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড ও অর্থদন্ডেও দন্ডিত হবে। যদি কেউ ধর্ষণের চেষ্টা করেন তাহলে ওই ব্যক্তি অনধিক ১০ বছরের কারাদন্ড ও পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত হবেন এবং অতিরিক্ত অর্থদন্ডেও দন্ডিত হবেন।

যদি পুলিশ হেফাজতে থাকাকালীন কোন নারী ধর্ষিত হন, তাহলে যাদের হেফাজতে থাকাকালীন ওই রুপ ধর্ষণ সংঘটিত হয়েছে সেই ব্যক্তি বা ব্যক্তিরা ধর্ষিত নারীর হেফাজতের জন্য সরাসরি দায়ী ছিলেন, তিনি বা তারা প্রত্যেকে ভিন্নরুপ প্রমাণিত না হলে হেফাজতের ব্যর্থতার জন্য অনধিক ১০ বছরের অনূন্য পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত হবেন এবং অতিরিক্ত ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ডে দন্ডিত হবেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন