নবজাতকের স্নান : সাবধানতার শেষ নেই

শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ | পাঠক কলাম
প্রকাশিত: বুধবার, ১০ এপ্রিল ২০১৯ | ০৯:৪০:২৮ এএম
নবজাতকের স্নান : সাবধানতার শেষ নেই
নবজাতকে প্রায় প্রতিদিন স্নান করানো উচিত। স্নানের জন্য কুসুম গরম পানি ব্যবহার করুন। অনেকে মাথায় স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানি আর শরীরে উষ্ণ পানি ব্যবহার করেন। এটা ঠিক নয়। একই তাপমাত্রার পানি ব্যবহার করুন। নবজাতকের উপযোগী সাবান, শ্যাম্পু, বডি ওয়াশ ইত্যাদি ব্যবহার করতে কোনো নিষেধ নেই।

শুধু খেয়াল রাখুন, কোনো বিশেষ ব্র্যান্ডে কোনো প্রতিক্রিয়া (লাল দানা, ফুসকুড়ি ইত্যাদি) হয় কিনা। তা হলে ওটা পরিবর্তন করে অন্য ব্র্যান্ড ব্যবহার করুন। তবে প্রতিদিন এগুলো ব্যবহার করার প্রয়োজন নেই। সপ্তাহে ২-৩ দিন ব্যবহার করলেই যথেষ্ট। তবে স্নানের পানিতে ডেটল, স্যাভলন, সেনিটাইজার, অ্যান্টিসেপটিক দ্রবণ ব্যবহার করা উচিত নয়।

এগুলো ত্বকের উপকারী জীবাণু ধ্বংস করে। ফলে ত্বকের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ব্যাহত হয়। ক্ষতিকর জীবাণুর সংক্রমণের আশঙ্কা বাড়ে। তা ছাড়া এগুলো বেশ কড়া রাসায়নিক, যা ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। স্নানের সময় খেয়াল রাখুন, যেন শিশুর কানে ও নাকে পানি না যায়। গোসলের পর সঙ্গে সঙ্গে নরম ও মোটা তোয়ালে দিয়ে জড়িয়ে নিয়ে মোলায়েমভাবে শরীর শুকনো করে মুছে ফেলুন। কিছুক্ষণ বুকে জড়িয়ে ধরে রাখুন, যাতে উষ্ণতা পায়।

এরপর জামা-কাপড় পরিয়ে দিন। অনেকেরই ধারণা, নিয়মিত স্নান করালে শিশুর ঠা-া লেগে যাবে। আসলে উল্টোটা সত্যি। আমাদের এ উষ্ণ ও আর্দ্র আবহাওয়ায় গোসল না করালেই বরং শিশু অস্বস্তিবোধ করে, বারবার ঘেমে যায়। ঘাম বসে গিয়ে ঠাণ্ডা লাগতে পারে। এ ছাড়া অপরিচ্ছন্ন থাকলে চর্মরোগ, এমনকি ইনফেকশন হওয়ারও আশঙ্কা বেড়ে যায়। তাই যে কোনো আবহাওয়ায় ছোট-বড় সব শিশুকে প্রতিদিন হালকা গরম পানিতে গোসল করানো উচিত।

বৃষ্টির দিন, মেঘলা দিন বা আবহাওয়া ঠা-া থাকলে গোসল করাতে না চাইলে হালকা গরম পানিতে আরামদায়ক সুতি কাপড় ভিজিয়ে শরীর মুছে দিন। সাবধান! শিশুর স্নানের সময় তাকে একা টাবে বা গামলায় রেখে এক মুহূর্তের জন্যও কোথাও যাবেন না। অল্প পানিতেও শিশু ডুবে যেতে পারে এবং খুব অল্প সময়েই বিপদ হতে পারে।

লেখক : আবাসিক চিকিৎসক (শিশু ও নবজাতক বিভাগ), বারডেম জেনারেল হাসপাতাল-২ (মহিলা ও শিশু হাসপাতাল), সেগুনবাগিচা, ঢাকা। ০১৬৩৬৬৯২২৯৮, ৯৫১১০১০-২১

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন