চিলমারীতে শান্তি নগরে অশান্তির সড়ক, এ যেন মরণ ফাঁদ

চিলমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: শনিবার, ৬ মার্চ ২০২১ | ০১:৩৬:১৯ পিএম
চিলমারীতে শান্তি নগরে অশান্তির সড়ক, এ যেন মরণ ফাঁদ
আছে জনবল আসছে বাজেট কিন্তু পরিবর্তন হচ্ছেনা চিলমারীর সড়ক ব্যবস্থার। দেশ এগিয়ে গেলেও চিলমারী সড়ক ব্যবস্থার হয়নি উন্নয়ন। যোগাযোগ ব্যবস্থায় পিছিয়ে পড়ছে উপজেলাটি। বেহাল সড়কে বাড়ছে দুর্ভোগ, নেই উদ্যোগ নেই কোন নজর। অসহায় জনসাধারন, সড়ক যে এখন মরণ ফাঁদ।

জানা গেছে, কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার থানাহাট বাজারের কেন্দ্রবিন্দু থেকে রমনা রেল স্টেশন পর্যন্ত প্রায় ২ কিঃ মিঃ সড়কটির বেহাল দশা। স্থানে স্থানে পরিনত হয়েছে মৃত্যু ফাঁদে। বছরের পর বছর পেড়িয়ে গেলেও নেই সংস্কার। ফলে বাড়ছে দুর্ভোগে ঘটছে দুর্ঘটনা। নজর নেই জনপ্রতিনিধি কিংবা কর্তৃপক্ষের। সড়ক ও জনপদ বিভাগের অধিনে এই সড়কটি বর্তমানে মৃত্যু ফাঁদে পরিনত হলেও খেয়াল যেন নেই কারো।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, কিছুদিন অগে সড়ক ও জনপদ বিভাগের পক্ষ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যয়ে শান্তিনগর এলাকায় কিছু সংস্কার করলেও কাজে ব্যাপক দুর্নীতি ও অনিয়ম করায় সংস্কার পর পরেই তা ভেঙ্গে যায় ফলে দুর্ভোগের মাত্রা আরো বেড়ে গেছে।

এলাকার দুলু, নুরনবী, জুয়েলসহ অনেকে বলেন, এই এলাকার নাম বা এই রাস্তার কথা শুনলে কোন অটো, রিস্কা বা কোন যানবাহন আসতে চায় না। এছাড়াও এই পথে মাইক্রো ছোট ছোট ট্রাক প্রবেশ করা তো দুরের কথা অটো বা রিস্কায় আসতে পারে না। ফলে হাটা ছাড়া উপায় থাকে না।

এছাড়াও কোন ধরনের মালামাল আনাও কঠিন হয়ে পড়েছে। অটো, রিস্কা, ভ্যান চালকরা জানান, থানাহাট বাজার থেকে রমনা রেল স্টেশন পর্যন্ত রাস্তায় গাড়ি নিয়ে যাওয়া যায় না, গেলেও উল্টে পড়ার বেশি সম্ভবনা থাকে। দিন যাচ্ছে বাড়ছে দুর্ভোগ তবুও নেই উদ্যোগ। অসহায় হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ।

দুর্ভোগের কথা স্বীকার সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক মিলন বলেন, জনসাধারনের সমস্যা সমাধানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে।

কথা হলে অসুস্থ জনিত কারনে ঢাকায় ভর্তি বিষয়টি জানিয়ে সড়ক ও জনপদ বিভাগ কুড়িগ্রাম নির্বাহী প্রকৌশলী বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দ্রুত সমস্যার সমাধান করা হবে।

ফয়সাল হক/এনপি/বাংলাপত্রিকা

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন