ভৈরবে বিএনপি প্রার্থীর ইশতেহারে যা আছে!

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ০৪:৫১:৪৪ পিএম
ভৈরবে বিএনপি প্রার্থীর ইশতেহারে যা আছে!
কিশোরগঞ্জের ভৈরব পৌরসভা নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী হাজী মো: শাহিনের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করা হয়েছে।

বুধবার বেলা ১১টায় এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ ইশতেহার ঘোষণা করেন ভৈরব পৌরসভার সাবেক মেয়র ও পৌর বিএনপির সভাপতি ধানের শীষের প্রার্থী হাজী মোঃ শাহীন।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপি সভাপতি মো: শরীফুল আলম, ভৈরব উপজেলা বিএনপি আহবায়ক মোঃ রফিকুল ইসলাম, সদস্য সচিব মো: আরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

এসময় বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিক ও বিএনপির নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় ভৈরব পৌরসভাকে পরিস্কার পরিছন্ন আধুনিক শহর হিসেবে গড়ে তোলাসহ নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে নির্বাচনী ইশতেহারে উল্লেখ্য করা হয়। এর মধ্যে রয়েছে, ভৈরব পৌর শহরকে পরিস্কার পরিছন্ন রাখতে প্রয়োজনীয় ভূমি অধিগ্রহণ কওে আধুনিক ও বিজ্ঞানসম্মত ডাম্পিং স্টেশন স্থাপন, শিক্ষা বিস্তারে পৌর এলাকায় একাধিক পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন, পৌর পাবলিক লাইব্রেরী প্রতিষ্ঠা, পুরাতন ফেরিঘাট থেকে কোদালকাটি ব্রীজ পর্যন্ত বাঁধসহ রাস্তা নির্মাণ, শহরের জানজট নিরসনে জগন্নাথপুর বেনী বাজার থেকে রামনগর রেলব্রীজ ও পঞ্চবটী থেকে কাঠবাজার পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণ, পৌরবাসীর সুবিধার্থে হোল্ডিং ট্যাক্স কমানো, ব্যবসার ধরণ ও পরিধি বিবেচনা করে সকল প্রকার ট্রেড লাইসেন্স ফি কমিয়ে আনা, বিশুদ্ধ পানির চাহিদা মেটাতে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্লান্ট স্থাপন, পৌরসভার টি ওয়ার্ডেও বিভিন্ন রাস্তার নামকরণ পূর্বেও নামে ফিরিয়ে আনা ও জলাবদ্ধতা নিরসনের লক্ষ্যে প্রসস্থ ও আধুনিক ড্রেনেজ নির্মাণসহ পৌরসভার গুরুত্বপূর্ণ সড়কে সাধারণ মানুষের জানমালের নিরাপত্তা লক্ষ্যে বিভিন্ন ধরণের চাঁদাবাজি বন্ধ করা।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা আরো বলেন, আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্টিতব্য পৌরসভার নির্বাচনে বিএনপি ও আওয়ামীলীগের প্রার্থী দুজনই খুব ভালো মানুষ। তবে বিএনপি সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শংখায় ভুগছেন। কারণ ইতিমধ্যেই বিএনপি মনোনীতি ধানের শীষের বিভিন্ন পথসভা করতে গিয়ে সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন। দলীয় বাধার মুখে কয়েকটি পথসভাও করতে পারিনি তারা।

বক্তারা বলেন, প্রয়াত রাষ্ট্রপতি আলহাজ্ব মো: জিল্লুর রহমান একজন ভালো মানুষ ছিলেন, তিনি সব সময় সুষ্ঠু নির্বাচনের পক্ষে ছিলেন, জেতার জন্য কখনো নির্বাচনে হস্তক্ষেপ করেননি। তাই এর আগে হাজী মো: শাহিন জনগণের ভোটের মাধ্যমে পৌর মেয়র নির্বাচিত হয়েছিলেন। বক্তারা সুষ্ঠু নির্বাচনের আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন আলহাজ্ব নাজমুল হাসান পাপনও একজন ভালো মানুষ হিসেবে জানি। উনার বাবার এবং উনার সুনাম বৃদ্ধির লক্ষ্যে এ পৌর নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হওয়ার জন্য সহযোগিতা করেন যেন জনগণকে তাদের ভোট পছন্দের প্রার্থীকে দিতে পারে। তারা বলেন, ভৈরব কোন ব্যক্তি বা দলের নয়, ভৈরব সবার, তাই ভৈরবের উন্নয়ণের লক্ষ্যে সবাইকে মিলে মিশে কাজ করতে হবে।

এম.আর রুবেল/এসআর/বাংলাপত্রিকা

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন