শিবগঞ্জে আ’লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ নিহত ১

শিবগঞ্জ (বগুড়া) প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | ০৬:৫০:৩৪ পিএম
শিবগঞ্জে আ’লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ নিহত ১
বগুড়ার শিবগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ১ জন নিহত ও ১০ জন আহতের ঘটনা ঘটেছে।

উপজেলার ময়দানহাট্টা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের মধ্যে গত রাত ৯টায় ইউনিয়নের দাড়িদহ বাজার কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ব্যাপক সংঘর্ষে নিয়ামতপুর গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে আজহারুল ইসলাম নান্টু (৪০) নামে এক আওয়ামী লীগ কর্মী নিহত হয়েছে।

এছাড়াও আহত হয়েছে ১০ জন। এঘটনায় নিমিষের মধ্যে এলাকার সমস্ত দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়, প্রাণ ভয়ে সাধারণ মানুষেরা দিক-বেদিক ছুটা-ছুটি করতে থাকে। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা বাজারের ব্যবসায়ীদের দোকানের বৈদ্যুতিক বাতিগুলো ভেঙ্গে অন্ধাকারাচ্ছন্ন করে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর করে লুটতরাজ করে।

এলাকার বর্তমান আওয়ামীলীগ দলীয় চেয়ারম্যান এসএম রূপম ও নব্য আওয়ামীলীগ নেতা আবু জাফর মন্ডল আসন্ন ইউপি নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করায় তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব ও বিরোধ চরম আকার ধারণ করে। এ আধিপত্তকে বিস্তার করেই এ খুনের ঘটনা ঘটেছে বলে এলাকার সচেতন মহল মনে করেন।

জান যায়, সোমবার রাতে দাড়িদহ বাজারে কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে আওয়ামী লীগ দলীয় চেয়ারম্যান এসএম রূপম গ্রুপের সমর্থক আজহারুল ইসলাম নান্টু (৪০) কে রাত ৯টার সময় প্রতিপক্ষ আবু জাফর এর সমর্থকরা হামলা চালিয়ে এলোপাথারী চা-পাতি, রা দা ও দেশীয় অস্ত্র দ্বারা হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে। এতে সে মাথায় ও ঘারে গুরতর আঘাত প্রাপ্ত হয়। এলাকাবাসী উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে দিলে চিকিৎসারত অবস্থায় দিবাগত রাত ২টার দিকে মৃত্যু বরণ করেন। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এঘটনায় সহকারী পুলিশ সুপার শিবগঞ্জ সার্কেল আরিফুল ইসলাম সিদ্দিকী ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং স্থানীয় জন সাধারণ ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার জন্য অনুরোধ করেন এবং কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস প্রদান করেন। এর প্রেক্ষিতে ব্যবসায়ীরা ব্যবসায়ীরা পুনরায় দোকান পাট খুলে ব্যবসা বাণিজ্য চালু করেন। মঙ্গলবার হাটবার হওয়ায় ব্যবসায়ীরা চরম ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে বলে জানান। এ ঘটনায় নিহতের পিতা বাদশা মিয়া বাদী হয়ে শিবগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলার প্রস্তুতি গ্রহণ করছেন বলে পারিবারিক সূত্রে জানা যায়। বৈবাহিক জীবনে, স্ত্রী সুমাইয়া (৩০) ও ১ মেয়ে, ৩ ছেলে রেখে গেছেন। এদের মধ্যে হাসান আলী ও হোসেন আলী নামে ২ বছরের জমজ শিশু রয়েছে বলে পারিবারিক সূত্রে জানা যায়। পরিবারের একমাত্র উপার্জন শীল ব্যক্তি এসন্ত্রাসী হামলায় নিহত হওয়ায় পরিবারটির অসহায় হয়ে পড়েছে। তার পরিবারের পক্ষ থেকে ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করে দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দাবী করেছেন।

এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ এসএম বদিউজ্জামান বলেন, ঘটনার পরই রাত থেকেই এলাকায় অতিরি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এ ঘটনায় শিবগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলার দায়ের করা হবে। তদন্ত সাপেক্ষে দোষী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি জন্য আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আব্দুল হালিম/বাংলাপত্রিকা/এসএ

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন