ছাগলনাইয়ায় ভূয়া পুলিশ পরিচয়ে নগদ অর্থ ও হোন্ডা আত্মসাধকারী ২ জন গ্রেফতার

ছাগলনাইয়া (ফেনী) প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০ | ০১:১০:০৯ পিএম
ছাগলনাইয়ায় ভূয়া পুলিশ পরিচয়ে নগদ অর্থ ও হোন্ডা আত্মসাধকারী ২ জন গ্রেফতার
বাদীর অভিযোগ প্রাপ্তির সাথে সাথে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে মাত্র কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে ভূয়া পুলিশ পরিচয় দিয়ে, বাদীর কাছ থেকে ছিনতাই করে নিয়ে যাওয়া R15-V3 একটি মোটরসাইকেল উদ্ধারসহ চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে ছাগলনাইয়া থানার পুলিশ।

ছাগলনাইয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মেজবাহ্ উদ্দিন আহমেদ এর নির্দেশে, থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুবুর রহমান পিপিএম এর নেতৃত্বে থানার সাহসী পুলিশ অফিসার এসআই মোঃজাহাঙ্গীর আলম ও এসআই গিয়াস উদ্দিনসহ পুলিশের একটি দল, প্রতারণা মূলক ছিনতাইয়ের শিকার বাদী, পাশ্ববর্তী চট্রগ্রাম জেলার ভূজপুর থানা এলাকাধীন মোঃহাছান এর বর্ণিত লিখিত একটি অভিযোগ পাওয়া মাত্র ২৭ নভেম্বর দিবাগত ২৮ নভেম্বর গভীর রাতে ছাগলনাইয়া পৌরসভাধীন শহীদ মিনার এলাকায় সাঁড়াসী এক অভিযান চালিয়ে, ভূয়া পুলিশ পরিচয় দানকারী চক্রের ৪ সদস্যের মধ্যে ২ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারকৃত দুই ছিনতাইকারী প্রতারক কামরুল আহসান শাহিন (২৩) ও আনোয়ার হোসেন রনি (২৩)। তাদের উভয়ের বাড়ী, ছাগলনাইয়া পৌরসভাধীন মটুয়া গ্রামের (মধ্যম মটুয়া কড়া কাজী বাড়ী)। তারা ওই বাড়ীর কামাল উদ্দিন ও রুহুল আমিনের পুত্র।

বাদী মোঃ হাছান এর ছাগলনাইয়া থানায় দায়ের করা লিখিত অভিযোগে বর্ণিত ঘটনার বিষয় থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জানান, বাদীর সাথে পূর্বে থেকে গ্রেপ্তারকৃত আসামী কামরুল আহসান শাহিনের পরিচয় ছিলো। পূর্ব পরিচয়ের সূত্রে আসামী শাহিন বাদীর মোটরসাইকেলটি বিক্রি করে দিয়ে নতুন আরেকটি মোটরসাইকেল কিনে দেওয়ার নাম করে বাদীকে ছাগলনাইয়া পৌর শহরের পুরাতন আদালত সংলগ্ন স্থানে নিয়ে আসেন। বাদীর পরিচিত শাহিন চক্রের অন্য এক সদস্যকে ক্রেতা সাজিয়ে বাদীর মোটরসাইকেলটি বিক্রির দরদাম করাকালীন, শাহিনের সাজানো পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী ছিনতাইকারী প্রতারক চক্রের অন্য দুই সদস্য ঘটনাস্থলে এসে নিজেরকে পুলিশ পরিচয় দেওয়ার সাথে সাথে শাহিন ও ক্রেতা সাজানো চক্রের অন্য সদস্য তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল থেকে দৌঁড় দিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়।এই সুযোগে ভূয়া পুলিশ পরিচয় দানকারী চক্রের ওই দুই সদস্য বাদী হাছানের নাম ঠিকানা জিজ্ঞেস করে তার কছে থাকা মোটরসাইকেলটি চোরা মোটরসাইকেল বলে, তার কছেথাকা ৩০ হাজার টাকাসহ মোটরসাইকেলটি থানায় নিয়ে যাচ্ছে বলে প্রতারক চিনতাইকারী চক্রের ওই দুই সদস্য ঘটনাস্থল ত্যাগকরে চলেযায়। ভূয়া পুলিশ চলে যাওয়ার পর বাদী হাছান শাহিনের মোবাইলে ফোন দিলে মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ পাওয়ায় বাদী হাছানের মনে সন্দেহ জাগে।

ঘটনার বিষয় সত্যতা যাচাইয়ের লক্ষে অভিযোগকারী বাদী হাছান একপর্যায় ছাগলনাইয়া থানায় গিয়ে থানার বারান্দায় ঘোরাঘুরি করছে দেখে, থানার এসআই জাহাঙ্গীর আলম হাছানের পরিচয় জানতে চেয়ে কি সমস্যা জিজ্ঞেস করলে, তখন অভিযোগ দায়েরকারী বাদী হাছান তার সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনার বিষয় এসআই জাহাঙ্গীরকে স্ববিস্তার জানালে,জাহাঙ্গীর বিষয়টি তার উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করলে, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ তাৎক্ষণিক এই ঘটনার বিষয় দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করে ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেওয়ামাত্রই ঘটনার মূলহোতা ছিনতাইকারী প্রতারক চক্রের সদস্য শাহিনসহ অন্য আরো এক সদস্যকে মাত্র কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে গ্রেপ্তার করাসহ গ্রেপ্তারকৃতদের কাছথেকে বাদীর নিয়ে যাওয়া মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে, থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুবুর রহমান পিপিএম এর নেতৃত্বে এসআই জাহাঙ্গীরসহ বের হওয়া ছাগলনাইয়া থানা পুলিশের আভিযানিক দলটি।

ছৈয়দ কামাল উদ্দিন/এসআর/বাংলাপত্রিকা

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন