লক্ষ্মীপুরে বাজারে শীতের সবজি, আড়তে কম খুচরায় দাম বেশি

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি | অর্থনীতি
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর ২০২০ | ০২:৩১:৫৭ পিএম
লক্ষ্মীপুরে বাজারে শীতের সবজি, আড়তে কম খুচরায় দাম বেশি
লক্ষ্মীপুরে শীতকালীন সবজি বাজারে আসা শুরু করলেও দাম কমছে না। আড়তে কম হলেও খুচরা বিক্রেতারা সিন্ডিকেট করে সবজির চড়া দাম নিচ্ছে। এতে অতিরিক্ত দামে সবজি কিনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ক্রেতারা। তবে বাজার নিয়ন্ত্রণে আনতে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মাসুম ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার আশ্বাস দিয়েছেন।
 
জেলা শহরের আড়ৎ ও খুচরা বাজারে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, আড়তে কাঁচামরিচ ৮০ টাকা কেজি, শিম ৪৫ টাকা, টমেটো ৮০ টাকা, মুলা ৩০ টাকা, করলা ৬০ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। কিন্তু সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অসাধু খুচরা বিক্রেতারা ১২০ টাকায় কাঁচা মরিচ, ৮০ টাকায় শিম, ৬০ টাকায় মুলা, ১০০ টাকায় করলা বিক্রি করছে।

নিউজটি ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন...

প্রত্যেকটি সবজি কেজিতে ৫০ শতাংশ লাভ করছে তারা। এতে অতিরিক্ত দামে কাঁচা তরকারি কিনতে গিয়ে সংসারের অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনতে হিমশিম খাচ্ছে জনগণ। এমন পরিস্থিতিতে বাজার নিয়ন্ত্রণে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন সচেতন মহল।

মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) সকালে সদর উপজেলার পিয়ারাপুর আড়ত ও লক্ষ্মীপুর পৌর কাঁচা বাজারে গিয়ে সবজির মূল্যের এমন পার্থক্য দেখা যায়।

এদিকে পরিবহণ খরচ বেশি বলে সবজির দামও বেশি বলে দায় সারছেন লক্ষ্মীপুর পৌর কাঁচা বাজারের খুচরা বিক্রেতারা। এ বাজারে বেশিরভাগ সবজিই পিয়ারাপুর বাজার থেকে কিনে আনেন তারা। কিন্তু পিয়ারপুর থেকে লক্ষ্মীপুর পৌর কাঁচা বাজারের দূরত্ব সর্বোচ্চ ৩ কিলোমিটার।

জানা গেছে, লক্ষ্মীপুরের সবচেয়ে বড় কাঁচা তরকারির পাইকারি বাজার পিয়ারাপুর। এ বাজারে ভোর ৫ টা থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত পাইকারি দরে প্রায় ৩০ লাখ টাকার সবজি কেনাবেচা হয়। স্থানীয় সবজির পাশাপাশি বিভিন্ন জেলা থেকে এখানে বিভিন্ন কাঁচা পন্য আসে। কয়েক ঘন্টায় বাজারটি বেশ জমজমাট হয়ে উঠে। এ বাজারের সবজি খুচরা ব্যবসায়ীর জেলার সবগুলো বাজারে নিয়ে যান।

বাংলাপত্রিকা/বিএস/এসআর

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন