বাহুবলে মার্কেট নির্মাণের ঘটনায় বাড়ছে সাম্প্রদায়িক দ্বন্দ্ব

আজিজু্ল হক সানু, বাহুবল হবিগঞ্জ) প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: শনিবার, ৭ নভেম্বর ২০২০ | ০২:৫৮:৩৮ পিএম
বাহুবলে মার্কেট নির্মাণের ঘটনায় বাড়ছে সাম্প্রদায়িক দ্বন্দ্ব
বাহুবলে শ্মশানঘাটের মার্কেট নির্মাণের ঘটনায় সাম্প্রদায়িক দ্বন্দ্ব বাড়ছে। শুধু তা-ই নয়, এলাকাভিত্তিক বৈঠক, উপজেলা ও পুলিশ প্রশাসনের পাল্টাপাল্টি অভিযোগও চলছে।

জানা যায়, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বাহুবল উপজেলাধীন দ্বিগাম্বর বাজার। সংলগ্ন পানি নিষ্কাশনের একটি ছড়া রয়েছে। ছড়ার আশপাশে হিন্দু, মুসলিম সম্প্রদায়ের কয়েকটি গ্রাম অবস্থিত। ওই এলাকার লোকজন ছড়ার পার্শদিয়ে বহুপূর্ব হতে রাস্তার ন্যায় চলাচল করছেন। এ নিয়ে মতবিরোধ দেখা দেয়ায় গত ২০১৮ সনে হবিগঞ্জের সাবেক জেলা প্রশাসক মাহমুদুল হাসান মুরাদের নির্দেশক্রমে বাহুবলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসার রফিকুল ইসলাম বিরোধীয় বিষয়টি তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করেন।

প্রতিবেদনে তিনি বলেন, ছড়ার পাশে কিছু ভূমি শ্মশানঘাট হিসেবে ব্যবহারের জন্য সুখচর গ্রামের হিন্দু সম্প্রদায়ের ৩ ব্যক্তি কর্তৃক প্রদান করা হয়েছিল এবং তদন্তকালে তিনি রেকর্ডিও মালিকা বা কোন ওয়ারিশ পাওয়া পাননি।

এমতাবস্থায়, হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের দীর্ঘদিনের ব্যবহারের ভূমিটি শ্মশানঘাট হিসেবে অনুমতি দিয়ে হাজীমাদাম, রাজসুরত শ্মশানঘাট উন্নয়ন কমিটির সভাপতি করুণাময় দেবকে দখলনামা সমজিয়ে দিয়ে যান।

দীর্ঘদিনের ভোগ দখলে থাকা জায়গার উপর ইদানীং শ্মশানঘাটের নামে মার্কেট নির্মাণকে কেন্দ্র করে পক্ষবিপক্ষের মাঝে দ্বিধাদ্বন্দ্ব বাড়ছে। হিন্দু সম্প্রদায়ের পক্ষে বৈধভাবে মার্কেটের কাজ শুরু করা হয়েছে দাবী করে কমিটির সাধারন সম্পাদক সুদির দেব নাথ সহ ওই সম্প্রদায়ের কয়েক ব্যক্তি জানিয়েছেন, সরকারীভাবে বা রেকর্ডিও কোন রাস্তা উল্লেখ না থাকলেও মার্কেটের মধ্যস্থানে জনচলাচলের সুবিদা রাখা রয়েছে।

এদিকে মুসলিম সম্প্রদায়ের পক্ষে হাজীমাদাম গ্রামের হাবিবুর রহমান, শেখ বজলুর রহমান সহ আরও অনেকেই বলেন, এলাকার কয়েক হাজার মানুষজনের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করার লক্ষে মার্কেটের ছাদ ঢালাই কাজ চলছে। ইতিমধ্যে, জনচলাচলে দুর্ভোগ চলছে এবং ভবিষ্যৎ এ আরও কঠিন দুর্ভোগও আসতে পারে।

এ ব্যাপারে সচেতন মহলের দাবী, উভয়পক্ষের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ রক্ষায় নিরপেক্ষ প্রশাসনিক ব্যবস্থার মাধ্যমে সার্ভেয়ার কর্তৃক জমি নির্ধারণ করা দরকার। নতুবা, ভূল বোঝাবুঝি'র ফলে বড় ধরনের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

বাংলাপত্রিকা/এনপি

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন