নওগাঁয় আম গাছের নিচ থেকে বিধবার মৃতদেহ উদ্ধার

অহিদুল ইসলাম, মহাদেবপুর প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০ | ০৬:০৩:৩৮ পিএম
নওগাঁয় আম গাছের নিচ থেকে বিধবার মৃতদেহ উদ্ধার
নওগাঁয় নিজ বাড়ি থেকে একটু দূরে মন্দিরের পাশ্ববর্তী একটি আম গাছের নিচে এক বিধবার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেতে পান স্থানিয়রা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন নওগাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) ও মহাদেবপুর থানার ওসি। পরে স্থানিয় নওহাটামোড় ফাঁড়ি পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে।

মৃতদেহটি উদ্ধারের ঘটনাটি ঘটে ২১ শে অক্টোবর বুধবার দুপুরের পূর্ব মহূর্তে নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার চেরাগপুর ইউপির নলোবলো গ্রামে।

স্থানিয়রা জানান, নলোবলো গ্রামের মৃত দীনেষ চন্দ্র মন্ডলের বিধবা স্ত্রী সুনীতা ওরফে সুনীত (৬৫) এর মৃতদেহ নলোবলো গ্রামের গোবিন্দ মন্দিরের পার্শ্বে একটি আম গাছের নিচে বুধবার সকালে পড়ে থাকতে দেখতে পেয়ে একই গ্রামের নিবারন চন্দ্রর স্ত্রী অষ্টমীরানী ডাক চিৎকার দিলে

ঘটনাস্থলে নিহতের স্বজন সহ গ্রামের লোকজন ছুটে আসেন। নিহত বিধবা সুনীতা ৪ মেয়ে ও এক ছেলের জননী ছিলেন। মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত বিধবা সুনীতা তার একমাত্র ছেলে সুব্রত মন্ডলের সাথে একই বাড়িতে বসবাস করে আসছিলেন।

এব্যাপারে নিহত বিধবা সুনীতার নাতনী শ্রীমতি জুই মন্ডল জানান, রাতেও বাড়িতেই ছিলেন কিন্তু আমাদের অজান্তে ভোর সকালের কোন এক সময় বাড়ি থেকে বাহির হোন যা আমরা দেখতে পাইনি বলে তিনি বলেন প্রায় দিনই বাড়ির সবার আগেই ঘুম থেকে ওঠে ভোর সকালে বাড়ি থেকে বাহিরে বের হতেন। এসময় প্রতিবেশীরা বলেন, সুনীতা দীর্ঘদিন থেকে মানষিক রোগে ভুগছিলেন৷ সুনীতা তার শাড়ি পেচিয়ে আম গাছের ডালের সাথে গলায় ফাঁসদিয়ে ঝুলে আত্নহত্যা করার সময় নিচে পড়ার পর কার মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে বলে ধারনা স্থানিয়দের।

ঘটনাটি স্থানিয়রা পুলিশকে জানালে, খবর পেয়ে স্থানিয় নওহাটামোড় পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ এস আই জিয়াউর রহমান জিয়া ঘটনাস্থলে পৌছানোর পরই, বাড়ি থেকে একটু দূরে মন্দিরের পার্শ্ববর্তী আমগাছের নিচে পরিতাক্ত অবস্থায় মৃতদেহ থাকার ঘটনাটি জনমনে প্রশ্ন দেখাদিলে খবর পাওয়ার সাথে সাথে নওগাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) ও মহাদেবপুর থানার ওসি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

সত্যতা নিশ্চিত করে মহাদেবপুর থানার ওসি নজরুল ইসলাম জুয়েল জানান, মৃতদেহটি উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে, ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার পরই মৃত্যুর সঠিক কারন জানা যাবে।

বাংলাপত্রিকা/এনপি

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন