গৃহকর্মী মায়ের ছেলেকে ফুটবলার বানানোর গল্প

আব্দুল হালিম | পাঠক কলাম
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ০৩:৫১:৪৯ পিএম
গৃহকর্মী মায়ের ছেলেকে ফুটবলার বানানোর গল্প
ইংরেজি প্রবাদ আছে ‘Where there's will there's way.’ (ইচ্ছে থাকলে উপায় হয়।) এই প্রবাদটি আবারও প্রমান করলেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ২৪ নং ওয়ার্ডের অধিবাসী খালেদা বেগমের ছোট ছেলে সেকটর রাহমান। খালেদা বেগম একজন গৃহকর্মী। স্বামী হোসেন আলী দ্বিতীয় বিয়ে করার পর হতে দুই ছেলে সম্রাট(১১) ও সেকটর (২) কে নিয়ে আলাদা থাকেন খালেদা বেগম। মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে কাজ করে ছেলেদের বড় করেছেন। বিশেষ করে ছোট ছেলে সেকটরের ছিল ফুটবল খেলার নেশা। খালেদা বেগম সেই কস্টের টাকা দিয়ে ছেলেকে দামি দামি ফুটবল সহ খেলার সারঞ্জমাদি কিনে দেন। মায়ের সেই কস্টকে ব্যথাকে ব্যর্থ হতে দেই নি সেকটর রাহমান।

১৯৯৯ সালে জন্মগ্রহণ করা উদিয়মান ফুটবলার সেক্টর রাহমান ২০১১ সাল থেকে রাজশাহী জেলার অনূর্ধ্ব -১৩ দলের হয়ে খেলার জগতে প্রবেশ করেন। ধীরে ধীরে অনূর্ধ্ব -১৪, অনূর্ধ্ব -১৫,অনূর্ধ্ব -১৬,অনূর্ধ্ব -১৮ তে খেলে খেলার জগতে জায়গা করে নেন সেক্টর রাহমান। ২০১২ সালে তিনি বিকেএসপি তে খেলার সুযোগ পান। সুযোগ পাওয়ার পরেই বাংলাদেশ স্পোর্টিং ক্লাবের অধিনায়ক হয়ে খেলে ফুটবল প্রেমীদের হৃদয়ে জায়গা করে নেন এই ফুটবল পাগল খেলোয়ার।

২০১৮ সালে অনূর্ধ্ব -১৭ তে বাংলাদেশ যুব গেমস এ খেলে তিনটি গোল করে চ্যাম্পিয়ন হন সেক্টর রাহমান। এভাবেই ধীরে ধীরে ফুটবল নিয়ে এগিয়ে চলেন তিনি। ২০১৯ সালের শেষে তিনি অনূর্ধ্ব-২০ তে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে আবারও চ্যাম্পিয়ন হন। তার পর হতেই সেক্টরের ডাক আসে দেশের বিভিন্ন নামী-দামী ক্লাব হতে।

খেলার জগতে এই খেলোয়ার নিজেকে আরও দুরে নিয়ে যেতে। বাংলাদেশের জাতীয় ফুটবল দলের হয়ে খেলে বাংলাদেশের সম্মান বিশ্বের মাঝে তুলে ধরতে চান এই খেলোয়ার। বতর্মানে তিনি রাজশাহীতে মামুনুল ইসলাম জেট এর অধিনে কিশোর ফুটবল একাডেমিতে প্রাকটিস করছেন।

পুরন করতে চান ফুটবল প্রেমিকদের স্বপ্ন। পেতে চায় সবার ভালোবাসা। মায়ের স্বপ্নকে বাস্তবায়নে নিজেকে করেছেন এক সাহসী যোদ্ধা।

বাংলাপত্রিকা/এনপি

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন