করোনা ও বন্যার সংকট মোকাবেলায় গফরগাঁওয়ের পৌর মেয়র

মিথুন, গফরগাঁও (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি | বাংলা পত্রিকা স্পেশাল
প্রকাশিত: বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ০৫:০২:৩৫ পিএম
করোনা ও বন্যার সংকট মোকাবেলায় গফরগাঁওয়ের পৌর মেয়র
করোনার ক্ষতি মোকাবেলার পরপরই নতুন চ্যালেঞ্জ হিসেবে যোগ হয় বন্যা পরিস্থিতি। একদিকে করোনাভাইরাস, অন্যদিকে বন্যার প্রকোপে মানুষের জীবন বিপর্যস্ত হয়ে যায়। এই অবস্থায় করোনা ও বন্যা মোকাবেলায় গফরগাঁও পৌরসভার মেয়র এস এম ইকবাল হোসেন সুমন গ্রহণ করে নানা উদ্যোগ। চলমান সংকটে বহুমুখী কার্যক্রম হাতে নিয়ে পৌরবাসীর প্রশংসা কুঁড়িয়েছেন। করোনা ও বন্যার সংকটে নিজে মাঠে নেমে দক্ষতার সঙ্গে জনগণের অর্পিত দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

জানা যায়, পৌর মেয়রের সার্বিক কাজে উৎসাহ, উদ্দীপনা ও সহযোগিতা প্রদান করেন সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল। পৌর মেয়র সর্বত্র পরিচ্ছন্নতা অভিযান পরিচালনা, রাস্তা-ঘাট, অফিস, বাসাবাড়ির আনাচে-কানাচে জীবাণুনাশক স্প্রে করা, করোনা প্রতিরোধে হাত ধোয়া, মাস্ক ব্যবহার, ঘরে থাকা, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা সম্পর্কে পৌরবাসীকে সচেতন করতে ঘুরে ঘুরে লিফলেট বিতরণ, ডাস্টবিন নির্মাণ, পাবলিক টয়লেট নির্মাণ, মানববর্জ্য অপসারণের জন্য ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন করে, পৌরসভার রাস্তা উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখাসহ বন্যার্তদের মাঝে খাদ্য সহায়তা, চিকিৎসা সহায়তা, বন্যার্তদের জন্য আশ্রয় শিবিরের ব্যবস্থা গ্রহণ, আশ্রয় শিবিরের নিরাপত্তা প্রদান, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট প্রদান করেছেন।

নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে বহু মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ে। খেটে খাওয়া শ্রমজীবী মানুষ গুলো দূর্ভোগে পড়ে যায়। করোনা সংকট মোকাবেলায় পৌর নাগরিকদের দূর্ভোগ নিরসনে প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য উপহার হিসেবে ১০ হাজার প্যাকেট খাদ্য সহায়তা বিতরণ করেন। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ক্রমে ব্যক্তিগত তহবিল থেকেও প্রায় ২ হাজার পরিবারকে মেয়র খাদ্য উপহার হিসেবে দিয়েছেন। সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেলের সৌজন্যে পাওয়া প্রায় ৫ হাজার প্যাকেট খাদ্য সামগ্রীও পৌরবাসীর মাঝে বিতরণ করা হয়েছে। গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদের সৌজন্যে পাওয়া ২ হাজার প্যাকেট খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে অসহায় দরিদ্রদের মাঝে।
 
পৌরসভার ব্যবসায়ী ও সুশীল সমাজদের নিয়ে "করোনা মোকাবেলা পৌর তহবিল" গঠন করেন। পৌর কর্মচারীরা একদিনের বেতন ওই তহবিলে জমা দান করেন। বিপুল সাড়া জাগায় পৌর শহর জুড়ে এই তহবিল। অবশেষে সকলের সহযোগিতায় গঠিত এই তহবিল থেকে পরবর্তীতে ৫ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়। সংসদ সদস্যের পরামর্শক্রমে হঠাৎ লকডাউনে পড়ে যাওয়া ৫৩ টি পরিবারের মাঝে রাতে সুরক্ষা পোশাক পরিধান করে লকডাউনের বাড়িগুলোর দুয়ারে দুয়ারে ১৫ দিনের খাবার নিজের কাঁধে করে পৌঁছে দেয় পৌর মেয়র।
 
সচেতনতা ও প্রতিরোধ মূলক কাজের অংশ হিসেবে করোনা প্রতিরোধে পৌরসভার উদ্যোগে ১ হাজার পিছ হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করা হয়েছে। পৌরসভা কর্মচারীদের মাঝে হ্যান্ড গ্লাভস, হ্যান্ড সেনিটাইজার, জুতা, সাবান, মাস্ক ও পরিচ্ছন্ন পোশাক বিতরণ করেন। পৌর এলাকায় ১ হাজার মাস্ক বিতরণ করে। হাত ধোয়ার জন্য পৌরসভায় বুথ স্থাপন করাসহ পৌর এলাকার মার্কেট ও বিপণিবিতানগুলোতে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করা হয়। সচেতনতা মূলক মাইকিং করেন করোণা ও ডেঙ্গু সচেতনতায়। মশার লার্ভা ধ্বংস করাসহ মশক নিধনের ধূয়া প্রয়োগ করা হয়। কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ করে জীবাণুনাশক ছিটানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেন।

জনগণের অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে পৌর মেয়র এসএম ইকবাল হোসেন সুমনের করোণা রিপোর্ট পজেটিভ আসে এবং তিনি হোম কোয়ারেন্টাইনে চলে যান। গফরগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা গ্রহণ করেন। পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। দীর্ঘ এক মাস চিকিৎসা শেষে সর্বস্তরের জনতার আশীর্বাদে ও প্রভুর কৃপায় পৌর মেয়র সুস্থতা লাভ করে পুনরায় কাজে যোগদান করে। এর পরপরই পৌর শহরের বন্যার পরিস্থিতির অবনতি ঘটে তিনটি ওয়ার্ডের সহস্রাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়ে। এ সকল পরিবারের আশ্রয় ও নিরাপত্তা সকল ধরনের ব্যবস্থা পৌর মেয়র গ্রহণ করেন। নিজস্ব অর্থায়নে প্রায় ১৫ শত পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা বিতরণ করেন।

গফরগাঁও বাজারের ইজারাদার মোঃ রফিকুল ইসলাম সুজন বলেন, বৈশ্বিক মহামারী করোনা কালে পৌর মেয়র এস এম ইকবাল হোসেন সুমন তিনি তার নানামুখী উদ্যোগের ফলে পৌরবাসীর কাছ থেকেও অনেক প্রশংসা কুড়িয়েছে। তিনি করুণা জয়ী মেয়র মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি আল্লাহ ওনাকে দীর্ঘ হায়াত দান করেন ও আমৃত্যু পৌরবাসীর সেবা করার তৌফিক দান করুন।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক আওরঙ্গ হেলাল বলেন, সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল মহোদয়ের পরামর্শক্রমে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে স্বচ্ছ তালিকা প্রস্তুত করে দল-মত নির্বিশেষে সকলের ঘরে ঘরে পৌরমেয়র খাবার পৌঁছে দেন। আমি নিজেও উনাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছি এবং করোণায় আক্রান্ত হয়েছি। বন্যা ও করোনা কালে পৌর মেয়র পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রাণান্তর চেষ্টা করেছেন।

পৌর মেয়র এসএম ইকবাল হোসেন সুমন বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার  দূরদৃষ্টি নেতৃত্বে ফসল করোনা ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ বন্যা মোকাবেলা করে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ।যা আজ সারা বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে। প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশের দক্ষতা বিশ্বের অনেক উন্নত দেশকে হার মানিয়েছে। সংসদ সদস্য ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল মহোদয়ের সহচার্য, উৎসাহ ও অনুপ্রেরণা করোনার মতো মহামারী, বন্যা, ঘূর্ণিঝড়সহ প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করতে সক্ষম হয়েছি। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় গফরগাঁও পৌরবাসীর সাথে ছিলাম, আছি থাকব।বরাবরের মতোই পৌরবাসী আমাকে পাশে পাবে।

বাংলাপত্রিকা/এনপি

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন