ঘুষ, দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিএল কলেজে মানববন্ধন

রিপন হোসেন রবি, বিএলসি প্রতিনিধি | শিক্ষা ও ক্যাম্পাস
প্রকাশিত: বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯ | ০৬:২৯:১২ পিএম
ঘুষ, দুর্নীতির বিরুদ্ধে বিএল কলেজে মানববন্ধন
দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও সকল প্রকার সামাজিক সমস্যার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে খুলনার ঐতিহ্যবাহী সরকারি ব্রজলাল (বিএল) কলেজ।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় কলেজের প্রশাসনিক ভবনের সামনে কলেজের সম্মিলিত দুর্নীতি বিরোধী জোট খুলনা, এর আয়োজনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন কলেজের সকল বিভাগের শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রী বৃন্দ।

দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তৃতা রাখেন সরকারি বিএল কলেজের অধ্যক্ষ কে এম আলমগীর হোসেন। তিনি বলেন, দুর্নীতি সমাজিক ব্যাধি এবং রাষ্ট্রীয় ব্যাধিতে পরিনত হয়েছে। দুর্নীতির বিরুদ্ধে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। সরকারি, বেসরকারি অফিসে প্রফেশনালভাবে যে দুর্নীতির গুলো হয় এটা নিঃসন্দেহে বড় ধরনের ক্ষতিকর দিক। এটাকে যেমন নির্মূল করতে হবে তেমনি নির্মূল করে সরকারি কাজের গতিশীলতা আনতে হবে। দেশের উন্নয়নের গতিশীলতা বাড়াতে হবে।

ছাত্রদের উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, তোমরা এক একটি পরিবার থেকে এখানে পড়াশোনা করার জন্য এসেছো। তোমাদের মা, বাবা অনেক কষ্ট করে টাকা পাঠায়। তারা অনেক স্বপ্ন নিয়ে পড়ালেখা করার জন্য এখানে পাঠিয়েছে। কিন্তু তোমরা এখানে এসে বিভিন্ন অপকর্মের সাথে লিপ্ত হচ্ছ তার ফলে তুমি তোমার পরিবারের সাথে দুর্নীতি করছো।

তিনি বলেন, আমি শিক্ষক আমার দায়িত্ব হচ্ছে নিঃসন্দেহে ভালো করে নিজেকে প্রস্তুত করে ক্লাসে যেয়ে তা প্রদান করা। যাতে করে ছাত্ররা উপকৃত হয়। ছাত্রছাত্রীরা আামর থেকে কিছু শিখে সমৃদ্ধ হয়। কিন্তু আমি রাত্রে বই নিয়ে কখনো বসি না, পড়াশোনা করি না, আমি বিভাগে বসে গল্প করছি অন্য সহকর্মীদের সঙ্গে, আমার ক্লাসের সময় পার হয়ে গেছে, বা আমার মনে ছিল না, এমন অভিনয় করছি। তাহলে আমরাও দুর্নীতি করছি। এগুলো থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। শিক্ষামন্ত্রীর ফেসবুকের একটা স্ট্যাটাস তুলে ধরে তিনি বলেন, আর্থিক দুর্নীতি শুধু দুর্নীতি না, আমার দায়িত্ব আমি সার্বিকভাবে যদি পালন না করি, সেটিও দুর্নীতি।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জাতির জনকের সুযোগ্য তনয়া তিনি নিরন্তরভাবে এ দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার জন্য, এদেশের মানুষকে ২০৪১ সালে উন্নত বিশ্বে পৌছে দেয়ার জন্য, নিরন্তর ভাবে দুর্গম পথ বেয়ে তিনি দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছেন। তার সেই চলার পথকে মসৃণ করে দিতে, আরও বেগবান করে দিতে, এই দুর্নীতিকে সমাজ থেকে, প্রতিষ্ঠান থেকে নির্মূল করতেই হবে। এর কোন বিকল্প নেই, এবং আমরা সেটি করব। সারা দেশকে আমরা দুর্নীতিমুক্ত করতে পারবোনা কিন্তু বিএল কলেজ কে দুর্নীতিমুক্ত করব।

বাংলাপত্রিকা/এসআর

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন