শর্মী ইসলামের মিডিয়ায় পথচলা

আল আমিন, বিনোদন প্রতিবেদক | বিনোদন
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯ | ১১:২৮:৪৭ এএম
শর্মী ইসলামের মিডিয়ায় পথচলা
যশোরের এমএম কলেজ থেকে অর্থনীতিতে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করে বর্তমানে মিডিয়া পাড়ায় বেশ আলোচিত মুখ শর্মী ইসলাম। উদীয়মান তরুন প্রজন্মের প্রিয় মডেল তারাকা অভিনেত্রী শর্মী। ইতিমধ্যে মিডিয়া পথচলা মাত্র আঠারো থেকে বিশ মাসের ক্যারিয়ায় সফলতার শীর্ষেই অবস্থান করছেন মডেল অভিনেত্রী শর্মী ইসলাম। বর্তমান ও সমসায়মিক বিষয় নিয়ে কথা বলছেন বিনোদন রিপোর্টাস আল আমিন এর সাথে-

হ্যালো! কেমন আছেন?

শর্মী ইসলাম:  হুম, ভালো, আপনি কেমন আছেন?

আমি ভালো আছি, তবে আপনার বর্তমান কাজের অবস্থা কেমন চলছে?

শর্মী ইসলাম: হুম অবশ্যই ভালো! তবে এ বছর বেশ কিছু চমক নিয়ে ভক্তশ্রোতাদের সামনে হাজির হচ্ছি।

শ্রোতাদের জন্য ভালো খবর এটা। মিডিয়ায় আপনার শুরুটা কেমন করে হলো?

পোশাকের ব্রান্ড মডেলিং দিয়েই অভিনেত্রী হিসেবে ক্যারিয়া শুরু। প্রথম নাটক লিটু করিমের অন্তরালে বিষাদ দিয়ে মিডিয়া জগতে আত:প্রকাশ।

গত ঈদে প্রকাশিত নাটকগুলো মধ্যে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছে কয়েকটি নাম বলুন-

শর্মী ইসলাম: মাত্র এক দেড়বছরের প্রকাশিত বহু ওয়েব সিরিজ, ডজনখানিক স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র, টেলিফিল্ম এবং এক ডজনের মত নাটকে অভিনয় করা হয়েছে। গত ঈদে আমি ছয়টির মত নাটকে কাজ করেছি আমার করা প্রতিটি নাটকই আমার কাছে জনপ্রিয়তার র্শীষে আছে বলে আমি মনে করি। এর মধ্যে রয়েছে যদি থাকে নসিবে, বন্ধন, বিএসসি তালেব, গফুরের বিয়ে, কল্পনায় ভালোবাসা এবং লাভ লেইনের পান।

বর্তমানে বেশ আলোচনায় আছেন, চলচ্চিত্রে কোন অফার পেয়েছেন কি?

শর্মী ইসলাম: চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য বেশ কয়েকজন খ্যাতিমান নির্মাতাই তাকে অফার দিয়েছেন। তাতে আমার কোন সাড়া ছিলো না কারন অভিনয়ে পরিপক্কতা লাভের পর আমি চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে চাই। চলচ্চিত্রে অভিনয় করার মানসিক প্রস্তুতি গ্রহণ করেই আসতে চাই।

শৈশবেও কি মিডিয়ায় সম্পৃত ছিলেন?

শর্মী ইসলাম: শৈশব থেকেই উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীতে কাজ করে আসছি। মঞ্চেও কাজ করার পর মিডিয়ায় আসা। মিডিয়া জগতে আসাটা একে বারেই নড়বড়ে বলা যাবে না।

মিডিয়া ধারাবাহিকতা ধরে রাখার জন্য কি করা দরকার বলে আপনি মনে করেন?

শর্মী ইসলাম: বাবা-মার পর আমার ভালোবাসার স্থান মিডিয়া।এখানেই আমার ঠিকানা গড়ে তুলতে চাই। চলচ্চিত্র বা নাটক বলে কথা নয়, আমার কাছে গল্পটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। গল্প পছন্দ হলে পারিশ্রমিক নিয়ে খুব একটা ভাবি না। বাবা মার পরামর্শও আমি যেন ভালো গল্পে কাজ করি। আর ভালো গল্পে কাজ করলে দশকশ্রোতারা আমাকে গ্রহন করবে এতে আমার আত্ব:বিশ্বাসের কোন কমতি নেই।

ছোট পর্দা বা বড় পর্দা আপনার কাছে প্রিয় নায়ক কে, কার সাথে কাজ করতে বেশি স্বাচ্ছন্যবোধ করবেন বলে আমার বিশ্বাস?

শর্মী ইসলাম: টিভির সব নায়কই আমার পছন্দের। তবে বেশি পছন্দ তাকেই, যিনি ভালো অভিনয় জানেন। অসংখ্য নায়ক আছে যাদের অভিনয় আমার প্রিয়। গল্পের প্রয়োজনে অনেক সময় অনেক গল্পে কাজ করতে হয়। তারমধ্যেও নিজেদের সেরাটা সবাই দেওয়ার চেষ্টা করে। কাউকে আলাদা করে ভাবার দরকার আছে বলে আমি মনে করি না। কাজে সুধার্থে হয়তো যাদের ভালো লাগে না তাদের সাথেও কাজ হতে পারে সো তা আপাত্ত না বলি।

আপনার কোন বয়ফেন্ড্র আছে আর সে কি মিডিয়ার কেউ?

শর্মী ইসলাম: আমার কোনো প্রেম নেই, কোনো বয়ফ্রেন্ড নেই। কারণ আমার কাছে একজন বয়ফ্রেন্ডের চাইতে ক্যারিয়ার অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমার ক্যারিয়ারে যে সহায়তা করবে কেবল সেই হতে পারে আমার বয়ফ্রেন্ড। আমার কাজকে যে প্রাদন্য দিবে তাকে বিয়ে করবো অন্য কাউকে নয়।মিডিয়ারও হতে পারে আবার মিডিয়ার বাইরেও হতে পারে আল্লাহ সবচেয়ে ভালো যানে কোথায় রাখছে আমার দ্বিতীয় জীবন।

কাজ করতে গিয়ে কোন অসুবিধায় পড়ছেন কি?

শর্মী ইসলাম: কাজ করতে গিয়ে আমাকে কখনোই কোনো সমস্যায় পড়তে হয়নি। কেউ আমার প্রতি বিরুপ মনোভাবও দেখায়নি। আমি যে ইউনিটে কাজ করি, সেই ইউনিটকে আমি আপন করে নেই। সবার সঙ্গে পরিবারের সদস্যদের মতো থাকি।

আপনার আইডল অথ্যাৎ আপনি কাকে অনুসরণ করেন বেশি?

শর্মী ইসলাম: আমার প্রিয় অভিনেত্রী হল শাবনূর ও মৌসুমী আপু।শাবনূর ও মৌসুমী আপুই আমার আইডল অথ্যাৎ তাদেরকে আমি বেশি ফলো করি বলতে গেলে তিনিই আমার মডেল আইডল ।আমি শাবনূর ও মৌসুমী আপুর মত বিচিত্রা ধরনের চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকের হৃদয় একটা স্থায়ী আসন গড়ে তুলতে চাই।যেদিন আমি থাকবো না সেদিন যেন সবাই আমাকে স্মরন করে আমাকেও তাদের আইডল মনে করে।

মিডিয়া এখন ইউটিউব নির্ভর হয়ে পড়ছে বেশি আপনি কি মনে করেন?

শর্মী ইসলাম: এক সময় আমাদের সংস্কৃতি বেড়ে ওঠেছে চলচ্চিত,টেলিভিশন ও রেডিওর মাধ্যমে। যাত্রা এবং মঞ্চ হলো আমাদের সংস্কৃতির মেরুদন্ড। কিন্ত সংস্কৃতির পরিবর্তনমান ধারায় আমরা আজকের অবস্থান এসে পৌঁছে। প্রাচ্য প্রতীচ্যের সেতুবন্ধনে আজকের সংস্কৃতি যে স্বকীয়তা অর্জন করছে তারই মধ্যেই ঘটছে আমদের বিচরণ।

আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কি?

শর্মী ইসলাম: আমার ইচ্ছা আছে আমার জুনিয়নদের শেখানোর। আসলে শেখার কোনো শেষ নেই।আমি আমার সিনিয়রদের দেখে অনেক কিছু শিখেছি। সে শেখাটা পরবর্তী প্রজন্মে যারা আসবে তাদের মাঝে ছড়িয়ে দিতে চাই।

শ্রোতাদের উদ্দেশ্যে কিছু বলুন?

শর্মী ইসলাম: আমার ক্যারিয়ার এক বছর হলেও খুব কম সময়ের মধ্যে আমি সবার নজরে এসেছি। আমি মনে করি এটাই আমার বড় স্বার্থকতা এবং পাওয়া। আমার আরেক বড় পাওয়া হলো আমার পারিবারিক পৃষ্ঠপোষকতা। অভিনয়ের মাধ্যমে আমি দর্শকের মনে একটা স্থান করে নিতে চাই। এজন্য প্রয়োজন সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা। আশা করি আমার ভক্তশ্রোতারা আমার পাশে সবসময় আছে এবং থাকবে এটা আমি বিশ্বাস করি।

অসংখ্য ধন্যবাদ আপনাকে আপনার মূলবান সময় দেওয়ার জন্য। ভালো থাকবেন। ভক্তশ্রোতাদের জন্য নতুনত্ব নিয়ে সবসময় হাজির হবেন এই প্রত্যাশা করি।

আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ এবং সকল পরিবারবর্গকে আমার পক্ষথেকে ভালোবাসা নিরন্তন। ভালো থাকবেন। আল্লাহ হাফেজ

বাংলাপত্রিকা/আরইউ

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন