১৫ বছর পর কুলাউড়ায় আ.লীগের সম্মেলন: নেতৃত্বে আসছেন কারা!

মঈনুর রহমান সাহান, কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | রাজনীতি
প্রকাশিত: রবিবার, ৩ নভেম্বর ২০১৯ | ০৬:৪৪:৩২ পিএম
১৫ বছর পর কুলাউড়ায় আ.লীগের সম্মেলন: নেতৃত্বে আসছেন কারা!
অবশেষে কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনের অপেক্ষার অবসান ঘটছে। দীর্ঘ ১৫ বছর পর নেতাকর্মীদের কাঙ্ক্ষিত এ সম্মেলনকে ঘিরে প্রাচীনতম এই সংগঠনের নেতাকর্মীদের মাঝে বিরাজ করছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা। আগামী ১০ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনকে ঘিরে পদপ্রত্যাশীরাও কাজ করে যাচ্ছেন নির্ঘুম। তবে সম্মেলনকে ঘিরে রয়েছে উদ্বেগ আর উৎকন্ঠাও।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, ৩০অক্টোবর কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনের কথা থাকলেও তা পরিবর্তন করে ১০ নভেম্বর করা হয়েছে। আগে থেকেই জেলা আওয়ামী লীগের ঘোষিত সম্মেলনের তারিখ পেছানো হতে পারে বলে জানিয়েছিলেন দায়িত্বশীলরা।

এ নিয়ে উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে দফায় দফায় বর্ধিত সভা, মিটিং ও চায়ের দোকানসহ বিভিন্ন স্থানে আলোচনা চলছে। তবে এসবের মধ্যে মূখ্য আলোচনা হচ্ছে ‘কারা’ গুরুত্বপূর্ণ পদে স্থান পাচ্ছেন। দলের জন্য ত্যাগী, রাজনৈতিক যোগ্যতা, অতীত কর্মকান্ড, নির্যাতিত, হামলা-মামলাসহ নানাভাবে যোগ্যতা বিবেচনা করেই উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটিতে সভাপতি-সম্পাদকসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে আসতে পারেন যোগ্য নেতারা। এসব নিয়েই কেন্দ্র থেকে শুরু করে তৃণমূলের শীর্ষ নেতাদের মাঝেও চলছে নানা কৌশলী লবিং তদবির। তাছাড়া আওয়ামী লীগসহ অসঙ্গসংগঠনের শীর্ষ নেতাদের কাছেও পদপ্রত্যাশী নেতারা ধর্ণা নিচ্ছেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

সম্মেলনের এখনও ৭ দিন বাকি ইতিমধ্যে প্রার্থীদের তৎপরতা শুরু। সরগরম প্রার্থী ও সমর্থকদের ফেসবুক। বিশেষ করে সম্ভাব্য প্রার্থীরা ফেসবুকে নানামুখী তৎপরতা চালাচ্ছেন। দীর্ঘ ১৫ বছর পর কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ১০ নভেম্বর স্থানীয় ডাক বাংলো মাঠে। ধীরে ধীরে মঞ্চ প্রস্তুতের কাজ চলছে। এই খবরে নড়েচড়ে বসেছেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা। কাউন্সিলকে ঘিরে তাই পদ প্রত্যাশীরা দৌড়ঝাঁপ শুরু করে দিয়েছেন। পদ প্রত্যাশীদের অনুসারী ও শুভাকাঙ্খিরা পছন্দের প্রার্থীকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার-প্রচারণা করছেন চোঁখে পড়ার মতো।

এদিকে, দীর্ঘ ১৫ বছর পর কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হচ্ছে তাই তৃণমূল নেত্তাকর্মীদেরও আগ্রহের কমতি নেই। তবে কাউন্সিলে দলীয় আদর্শে বিশ্বাসী ত্যাগী আর নিবেদিতদের স্থান দিতে আহবান জানিয়েছেন তৃণমূল কর্মীরা।

এ বিষয়ে কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সম্মেলন আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাম রেনু বলেন, সম্মেলনকে সফল করতে ইতিমধ্যেই সাংগঠনিক সকল প্রস্তুতি নিচ্ছি, দীর্ঘ ১৫বছর পর অনুষ্ঠিত এই সম্মেলন সফলভাবে অনুষ্ঠিত হবে, আশা করছি দলের জন্য ত্যাগী নেতারা মূল্যায়ন পাবে।
 
বাংলাপত্রিকা/এসআর
 

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন