মহিলা মেম্বার ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে শ্রমিক নির্যাতন সহ বিভিন্ন দুর্নীতির অভিযোগ

মোঃ শহীদুল্লাহ, কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯ | ১১:১৯:৩৭ পিএম
মহিলা মেম্বার ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে শ্রমিক নির্যাতন সহ বিভিন্ন দুর্নীতির অভিযোগ
মহেশখালী উপজেলার মাতার বাড়ি ইউনিয়নের মহিলা মেম্বার ও তার স্বামী ডাঃ শাহাবুদ্দীনের বিরুদ্ধে, কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিকদের কাজ করিয়ে মজুরির টাকা না দিয়ে মারধর করে সাদা কাগজে স্বাক্ষর/টিপ সহি নিয়ে নিজ ঘরে তালাবদ্ধ করে বেঁধে রাখার গুরুতর অভিযোগ এনেছেন ভুক্তভোগী শ্রমিকরা।

পরে পাড়া প্রতিবেশীরা শ্রমিক বেঁধে রেখে নির্যাতন করার অপরাধে মামলা হবার আশঙ্কা প্রকাশ করলে, মহিলা মেম্বারের স্বামী বেঁধে রাখা শ্রমিকদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দিয়েছে বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিকের কাজ করা কুষ্টিয়ার সাজেদুল, নারায়ণ গঞ্জের অপু ও বরিশালের কামাল সহ ১০/১৫ জন শ্রমীকেরা মহিলা মেম্বারের অধীনে প্রকল্প এলাকায় কাজ করে বলে জানান। কাজ করিয়ে শ্রমিকদের মজুরি প্রদান না করে শারীরিক নির্যাতন করেছে। মহিলা মেম্বার কামরুন্নেছা ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করেছেন নির্যাতিত শ্রমিকরা।

নির্যাতিত ও মজুরি না পাওয়া শ্রমিকেরা তাদের করা অভিযোগে আরো জানান, তাদের মজুরী না পাওয়ায় তারা কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের আলফাজ সাহেব নামক এক কর্মকর্তাকে নালিশ করায় তাদের উপর শারীরিক নির্যাতন চালানো হয় বলে জানান।  

এই অভিযোগের সত্যতা নিরূপণে অনুসন্ধান করতে গেলে জানা যায়, মহিলা মেম্বার কামরুন্নেছা নিজ এলাকার দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মাঝে ভিজিডি, ভিজিএফ কার্ড, বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতার সুবিধা ভোগীদের কার্ড দেওয়ার সময় টাকা নিয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

এই অভিযোগের বিষয়ে মহিলা মেম্বারের স্বামী ডাঃ শাহাবুদ্দীনের সাথে ফোনে কথা বলে অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি আমাদের জেলা প্রতিনিধিকে জানান, শ্রমিকদের আনিত অভিযোগ সমূহ মিথ্যা এবং ষড়যন্ত্রমূলক।

ডাঃ শাহাবুদ্দীন আরও বলেন, তাদের সাথে কথা মাসিক ২২ হাজার টাকা করে। কিন্তু তিনি মাসিক ৩০ হাজার টাকা করে অভিযোগ কারী শ্রমিকদের বেতন দিয়েছেন বলে দাবী করেন।

বাংলাপত্রিকা/এসআর

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন