হাটহাজারীতে এসএস রাশেদুল আলম একজন সৎ মানুষ যা ইতেমধ্যে

মোঃ রফিকুল ইসলাম, হাটহাজারী প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: বুধবার, ৯ অক্টোবর ২০১৯ | ১০:৩৮:৫৪ পিএম
হাটহাজারীতে এসএস রাশেদুল আলম একজন সৎ মানুষ যা ইতেমধ্যে
হাটহাজারীর আপামর জনসাধারণ সহ পুরো উত্তর চট্টগ্রামবাসী এক বাক্যে স্বীকার করে।

কারণ ছাত্রজীবন থেকেই উনি ছিলেন সুশৃঙ্খল, চট্টগ্রামের স্বনামধন্য স্কুল নাসিরাবাদ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়

থেকে কৃতিত্বের সাথে মেট্রিক, ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক কলেজ ইন্টারমিডিয়েট এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পাশ করেন। স্কুল জীবন থেকেই বঙ্গবন্ধুর আর্দশে উজ্জীবিত হয়ে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন।

স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় পড়ালেখা এবং ছাত্ররাজনীতি কৃতিত্বের সাথে শেষ করে যোগদেন উত্তর চট্টগ্রামের যুবলীগের রাজনীতিতে সেখানেও ক্লিন ইমেজের রাজনীতিবিদ হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেন। ধাপে ধাপে হয়ে উঠেন উত্তর চট্টলার যুবসমাজের আইডল, দায়িত্ব পান চট্টগ্রাম উত্তরজেলা যুবলীগের সাধারাণ সম্পাদক এর, সেই দায়িত্বও পালন করেন সততার সাথে যার ফলস্বরূপ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ১০ জন নেতার মধ্য থেকে সকল গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট নিয়ে যাচাই বাচাই করে উনাকে উপজেলা চেয়ারম্যান এর জন্য মনোনীত করে নৌকা পথিক তুলে দেন। এবং হাটহাজারী থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে জনগণের আস্তা অর্জন করেন।

রাজনীতি যখন প্রায় সন্ত্রাস টেন্ডারবাজ চাঁদাবাজ মাদকসম্রাট ক্যাসিনো সম্রাট দের গন্ডিতে সীমাবদ্ধ সেই সময়ও এস এস রাশেদুল আলম ভাইদের মত কিছু মানুষদের কারণে এখনো মানুষ সুষ্ঠ রাজনীতি নিয়ে স্বপ্ন দেখে নিজেদের দেশগঠনে আত্মনিয়োগ করতে আগ্রহী হয় সেই রাশেদ ভাইদের বিরুদ্ধে যদি এভাবে আমাদেরই কিছু নষ্ট ভ্রষ্ট নেতাদের পৃষ্টপোষকতায় কিছু ভুঁইফোঁড় হলুদ মিড়িয়া মাধ্যমে ষড়যন্ত্র করে তাদের থামিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হয় তখন খুব দুঃখ পাই, কষ্ট হয় কারণ এতে রাশেদ ভাইদের চেয়ে দেশের ক্ষতি হবে বেশি।

বাংলাপত্রিকা/এসএ

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন