পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরে এফডব্লিউভি পদে নিয়োগে ২৯ জেলা বঞ্চিত হওয়ার পূর্বভাস

পারভেজ শাহরিয়ার, আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি | চাকরির খবর
প্রকাশিত: রবিবার, ৬ অক্টোবর ২০১৯ | ০৩:৫৪:৪৬ পিএম
পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরে এফডব্লিউভি পদে নিয়োগে ২৯ জেলা বঞ্চিত হওয়ার পূর্বভাস
পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের ১টি গুরুত্বপুর্ন পদ এফডব্লিউভি উক্ত পদে কর্মরতদের উছিলায় দরিদ্র মা ও বোনরা গাইনী সেবা পেয়ে থাকে। যা তাদের মৌলিক অধিকারও বটে। গ্রামাঞ্চলের হতদরিদ্র নারীদের জন্য এই সেবা সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া বিরাট আশির্বাদ হলেও ২৯ জেলার হতভাগ্য দরিদ্র নারীরা তাদের এই মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হতে যাচ্ছে।  

নাম প্রকাশ না করার শর্তে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের জনৈক ব্যক্তির কাছ থেকে জানা যায়, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের (উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের) সদ্য অনুষ্ঠিত সভায় ২৯ জেলা বাদ দিয়ে বাকী জেলাগুলোতে চুড়ান্ত নিয়োগের প্রস্ততি চলছে। যা গ্রামীন দরিদ্র নারীদের মৌলিক অধিকারের পরিপন্থি। যদিও নিয়োগ প্রক্রিয়ার শুরুতে সব জেলায় চাহিদাপত্র চাওয়া হয়েছিল এবং সে মোতাবেক জেলাগুলে থেকে অধিদপ্তরে চাহিদাপত্র পাঠানোর পরে অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে নিয়োগ প্রক্রিয়া অনেকদুর এগিয়েছিল। অথচ বর্তমানে কোন এক অদৃশ্য কারনে কিংবা অধিদপ্তরের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সিদান্তহীনতার পরিপেক্ষিতে ঢাকার দক্ষিনাংশের অধিকাংশ জেলাসহ সারাদেশের ২৯টি জেলার দরিদ্র নারীরা তাদের মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হতে যাচ্ছে।

এফডব্লিউভি পদে আবেদনকারী বরগুনার জেলার মিনু রাণী জানান, আমি বিশ্বস্থ সূত্রে জানতে পারলাম আমাদের জেলাসহ ২৯টি জেলা বাদ দিয়ে চুরান্ত নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ন করতে করতে যাচ্ছে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর।

একই পদে অপর আবেদনকারী বরিশাল জেলার রোজিনা আক্তার ও আইরিন খানম মুঠোফোনে জানান, আমাদের জেলা বাদ দিয়ে নিয়োগ প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন করতে যাচ্ছে পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর। যা আমাদের মৌলিক অধিকার পরিপহ্নি।  

উল্লেখ্য ২০১৭ সালের ২১ সেপ্টেম্বর পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি মোতাবেক সারাদেশের ৬১টি জেলায় এফডব্লিউভি পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। অধিদপ্তরের নিয়মানুযায়ী ১৮ মাস প্রশিক্ষণের পরে উক্ত পদধারীদের কর্মস্থলে নিয়োগ দেওয়া হয়। দীর্ঘ এই সময়ের মধ্যে অনেক পদ শুন্য হয়।

বাংলাপত্রিকা/এসআর

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন