ইলিশের বিনিময়ে ফারাক্কার পানি : মির্জা আব্বাস

নিজস্ব প্রতিবেদক | রাজনীতি
প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১ অক্টোবর ২০১৯ | ০৫:৪৫:০০ পিএম
ইলিশের বিনিময়ে ফারাক্কার পানি : মির্জা আব্বাস
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, “কয়েকদিন আগে পূজা উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ থেকে ৫০০ মেট্রিক টন ইলিশ মাছ উপহার হিসাবে ভারতে পাঠানো হল। ৫০০ টাকা কেজি হিসেবে ওখানে গেছে। বিনিময়ে কি পেলাম? ১০৯টা ফারাক্কার স্লুইস গেইট খুলে দিছে, বন্যায় ডুবে যাবে। আর পেঁয়াজ! ইলিশ মাছ দিছেন ভাই, পেঁয়াজ ছাড়া খেতে পারবে নাকী?”

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ইলিশ মাছ উপহার দেওয়ার কারণও আছে, পেঁয়াজ ছাড়া তো আর ইলিশ মাছ খাওয়া যাবে না। ভারত যেহেতু পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছে এখন পদ্মার ইলিশ ঘরে নিয়ে খাবেন কিভাবে? এজন্যই হয়তো সরকার ৫০০ টাকা কেজি দরে এত ইলিশ ভারতকে দিয়ে দিয়েছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে এখন পেঁয়াজের দাম ১২০ থেকে ১৩০ টাকা কেজি। আমাদের এক মন্ত্রী না সচিব বললেন- উদ্বিগ্ন হওয়ার কারণ নাই। আমি উনার কাছে জানতে চাই- পেঁয়াজ কত টাকা কেজি হলে আপনি উদ্বিগ্ন হবেন- এই কথাটা একটু প্রকাশ করবেন কি?

নিউ ইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে মির্জা আব্বাস বলেন, “আপনি বলেছেন, আপনি ঘর থেকে শুরু করেছেন শুদ্ধি অভিযান। আপনার বক্তব্যকে স্বাগত জানাই। ইনশাল্লাহ খুব তাড়াতাড়ি রাঘব-বোয়ালদের ধরবেন।”

“প্রধানমন্ত্রী নাকী সকলকে ধরবেন। আরে ভাই ২০০৬ সালের পর থেকে আজ পর্যন্ত হিসাব দিতে দিতে ওই দুর্নীতি দমন কমিশন অফিস, কোর্ট-কাচারি প্যারেড করতে করতে জানটা শেষ। গতকাল সকালে রাজশাহী থেকে এসে ট্রেন থেকে নেমে বাসায় যেতে পারি নাই। সোজা কোর্টে যেতে হয়েছে আমাদেরকে।

“এই মুহূর্তে বিএনপির একটা গ্রুপ- সেক্রেটারি জেনারেল, মওদুদ আহমদ, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বরকতউল্লাহ বুলুসহ কোর্টে এখন হিসাব দিচ্ছে। আরে ভাই, আমরা তো হিসাব দিচ্ছি, এখন আপনারা হিসাব একটু দেন না।”

আব্বাস বলেন, “আমার কথা না, টিআইবির রিপোর্ট, তারা বলেছেন, তারেক রহমানকে অপরাধী প্রমাণ করতে বাংলাদেশ সরকার ৪৫ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করেছে। আমরা প্রশ্ন হল এই টাকাটা পাইলেন কোথায়, কোন অ্যাকাউন্ট থেকে ব্যয় হয়েছে?”

খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে মির্জা আব্বাস বলেন, সরকার সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে আটকে রেখে হত্যার ষড়যন্ত্র করছে। তিনি অসুস্থ। তাকে হাসপাতালে চিকিৎসা না দিয়ে তিলে তিলে মারা হচ্ছে। জনগণ কিন্তু বসে থাকবে না। এর জবাব তারা দেবে।

মানবিক কারণে তিনি মুক্তি পেতে পারেন, চিকিৎসা পেতে পারেন দাবি করে মির্জা আব্বাস আরও বলেন, নেত্রী অসুস্থ। উনাকে চিকিৎসার জন্য তেমন সুযোগ দেয়া হচ্ছে না— যদিও বলা হচ্ছে তিনি চিকিৎসা পাচ্ছেন। জেলখানার ভেতরে এটা চিকিৎসা নয়। দেশের মানুষ খালেদা জিয়ার মুক্তির অপেক্ষায় বসে আছে।

আরইউ

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন