জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন পরিবার পরিকল্পনা অফিসে-কর্মচারীরা

রিপন মিয়া, শেরপুর হাইওয়ে প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১১:০৫:১৫ এএম
জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন পরিবার পরিকল্পনা অফিসে-কর্মচারীরা
নবীগঞ্জ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা বুলবুল আহমদ, নবীগঞ্জ থেকে। নানা সমস্যায় জর্জরিত নবীগঞ্জ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস। ভবনটির ছাদ ডেমেজ হয়ে যাওয়ায় ছাদ দিয়ে বৃষ্টির পানি ছুপসে পড়ে, ছাদের আস্তর খসে খসে পড়ছে। পরিবার পরিকল্পনা অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে অফিস পরিচালনা করে আসছেন।

ছাদ ধসে গিয়ে যে কোনো সময় মারাত্মক দুর্ঘটনার আশংকায় রয়েছেন তারা। পরিবার পরিকল্পনা অফিসের অধীনে বিভিন্ন পদে ১৩৭ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী কর্মরত রয়েছেন। তারা প্রতিদিন পরিবার পরিকল্পনা, মা ও শিশু স্বাস্থ্য, পুষ্টি, কিশোর কিশোরীর প্রজনন স্বাস্থ্য সেবা, গর্ভকালীন, প্রসবকালীন, প্রসব পরবর্তী, নবজাতকের স্বাস্থ্য সেবা, কৈশোর বান্ধব স্বাস্থ্য সেবা, ট্যাবে দম্পতি রেজিস্ট্রেশন, জনসংখ্যা রেজিস্ট্রেশন গর্ভবতী রেজিস্ট্রেশন করে জাতির জনকের স্বপ্নের সোনার বাংলা ও জননেত্রীর শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।

পরিবার কল্যাণ সহকারীগন সপ্তাহে তিন দিন কমিউনিটি ক্লিনিকে সেবা দিচ্ছেন, ইপিআই টিকাদান কেন্দ্রে সেবা দিচ্ছেন এবং বিভিন্ন জাতীয় দিবসে স্বাস্থ্য বিভাগকে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগ সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা করে আসছেন। উপজেলা পর্যায়ে প্রতিদিন পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীগন সবচেয়ে বেশি সার্ভিস প্রোভাইড করছেন। তথাপিও নবীগঞ্জ পরিবার পরিকল্পনা বিভাগটি জড়াজীর্ণ পরিবেশে পরিত্যাক্ত ভবনে তাদের দৈনন্দিন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন।

পরিবার পরিকল্পনা অফিস গুরুত্বপূর্ণ, দায়িত্বপ্রাপ্ত বিভাগ হয়েও অবহেলিত অবস্থায় পড়ে আছে। সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় ওই অফিসে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দৈনন্দিন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জীবনের নিরাপত্তা বিধান কল্পে পরিবার পরিকল্পনা অফিস জরুরী ভিত্তিতে মেরামত/ হাসপাতালের মূল ভবনে প্রয়োজনীয় সংখ্যক রুম বরাদ্দ প্রদানের জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ, এলজিডি, হেলথ ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট’সহ এবং স্থানীয় সংসদ সদস্য এর সদয় দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন।

উল্লেখ্য যে বাংলাদেশের সবকয়টি উপজেলায় উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় উপজেলা হেলথ কমপ্লেক্সের মূলভবনে অবস্থিত। একমাত্র নবীগঞ্জ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়টিই মূল ভবনের বাহিরে রয়েছে। উক্ত অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জানান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে একাধিকবার লিখিত ও মৌখিক ভাবে অবহিত করা সত্ত্বেও প্রয়োজনীয় সংখ্যক রুম বরাদ্দ পাওয়া যায়নি। জনস্বার্থে নবীগঞ্জ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসটি অন্যত্র স্থানান্তর করা একান্ত আবশ্যক বিধায় প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন ওই অফিসে কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ।

বাংলাপত্রিকা/এসএ

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন