ডোমারে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে উপজেলা সম্পাদকের বহিঃস্কার চাইলেন সভাপতি

মোঃ মিঠু মিয়া, নীলফামারী প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: রবিবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ০৬:৪৩:৪০ পিএম
ডোমারে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে উপজেলা সম্পাদকের বহিঃস্কার চাইলেন সভাপতি
এবার পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে সাধারণ সম্পাদক তোফায়েল আহমেদের বহিঃস্কার চেয়েছেন ডোমার উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি খায়রুল আলম বাবুল।

রবিবার (১লা সেপ্টেম্বর) নীলফামারীর ডোমার উপজেলা শহরের নাট্য সমিতি মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয় উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীবৃন্দের ব্যানারে।

এতে অভিযোগ করা হয়, ১৪সেপ্টেম্বরের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ভন্ডুল করতে নানা অপচেষ্টা চালাচ্ছেন তোফায়েল আহমেদ।

লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করে সংবাদ সম্মেলনে খায়রুল আলম বাবুল বলেন, গেল ২৫ জুলাই বোড়াগাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিপক্ষে অবস্থান নেন দলের উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ। নিজের ভাই দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ায় নৌকা প্রতিকের প্রার্থী আমিনুল ইসলাম রিমুনকে পরাজিত করার জন্য প্রার্থী দাড় করিয়ে দেন আরো তিনজনকে। তারপরও নৌকা বিজয়ী হয়েছে এক হাজার দুই’শ ভোটে।

খায়রুল আলম অভিযোগ করেন,  মোটর সাইকেল ছিনতাই, অপহরণ, ভুমি দস্যুতা, চাকুরী দেওয়ার নাম করে টাকা আত্মসাৎ, মাদক নিয়ন্ত্রণসহ বিভিন্ন অপরাধ মুলক কাজে জড়িত রয়েছেন তোফায়েল আহমেদ গংরা। সাংগঠনিক বিরোধী কার্যক্রমের জন্য তার বিরুদ্ধে শোকজ নোটিশ প্রেরণসহ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে কেন্দ্রে চিঠি পাঠানো হবে দ্রুত। 

তার পক্ষে আওয়ামীলীগের নেতা কর্মী নেই এমন অভিযোগ করে তিনি আরো বলেন, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ, লাঠিয়াল বাহিনী ছাড়াও রয়েছে বিএনপি থেকে আগত হাইব্রিড আওয়ামী নামধারী কতিপয় ব্যক্তি।

সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম মঞ্জু, এনায়েত হোসেন নয়ন, মঞ্জুরুল হক চৌধুরী, উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক আমিনুল ইসলাম রিমুন বক্তব্য দেন।

তবে সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ বলেন, প্রকৃত ঘটনা আড়াল করতে নিজেদেরকে রক্ষা করতে পাল্টা সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছেন খায়রুল আলম বাবুল। সভাপতি গণদের কি ভুমিকা ছিলো সবাই জানেন এবং এর স্বপক্ষে তথ্য প্রমাণাদি রয়েছে এবং দলীয় প্রধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর পাঠানোও হয়েছে। আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীরা তাকে দলে রেখে ১৪সেপ্টেম্বরের সম্মেলন চান না। এজন্য ষড়যন্ত্র শুরু করছেন বিভিন্ন ভাবে। ডোমার উপজেলায় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক অবস্থা সুশৃঙ্খল রাখা এবং গতিশীলতা বাড়াতে নেত্রী সঠিক ব্যবস্থা নেবেন বলে আমি আশা করি।

প্রসঙ্গত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়া এবং স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে প্রত্যক্ষ ভাবে ভোট করায় ডোমার উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি খায়রুল আলম বাবুলসহ আরো দশ নেতার বহিঃস্কার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন সাধারণ সম্পাদক তোফায়েল আহমেদ। সেখান থেকে মাননীয় নেত্রী বরাবর খোলা চিঠিও প্রেরণ করেন তারা।

বাংলাপত্রিকা/এসআর

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন