ভেড়ামারার শিল্পী ক্লিনিকে প্রসূতি মায়ের মৃত্যু, মালিককে গণধোলাই

খন্দকার সাদিকুল আলম, ইবি থানা প্রতিনিধি | সারাদেশ
প্রকাশিত: শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯ | ১১:২৪:৫৬ পিএম
ভেড়ামারার শিল্পী ক্লিনিকে প্রসূতি মায়ের মৃত্যু, মালিককে গণধোলাই
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার শিল্পী ক্লিনিকে অপারেশন করতে এসে এক প্রসূতি মায়ের করুণ মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার পর ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ একটি প্রাইভেট কার ভাড়া করে লাশটি পাঠিয়ে দেয় তার বাড়িতে।

এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ হয়ে শনিবার সকাল ৬টায় এলাকাবাসী ক্লিনিকের মালিক আশরাফুল এবং শিল্পী খাতুনকে গণধোলাই দেয়। পরে পুলিশে সোপর্দ করা তাদেরকে।

জানা গেছে, শুক্রবার রাত ১২টার দিকে প্রসব বেদনা নিয়ে মিরপুর উপজেলার বহলবাড়িয়া গ্রামের আনিমের স্ত্রী রিতু খাতুন (২২)কে ভেড়ামারার শিল্পী ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। রোগীর শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে তড়িঘড়ি অপারেশন করার সিদ্ধান্ত নেয় ক্লিনিকের মালিক আশরাফ এবং শিল্পী। অপারেশনের মাধ্যমে সুস্থ সবল পুত্র সন্তান প্রসব করেন রিতু খাতুন।

এসময় রক্ত বন্ধ করতে না পারায়, রক্ত শূন্য হয়ে মারা যান প্রসূতি মা রিতু খাতুন। মৃত্যুর ঘটনা ধামাচাপা দিতে কুষ্টিয়ায় রেফারের নাটক সাজিয়ে তড়িঘড়ি করে একটি প্রাইভেটকারে তুলে মৃত রিতু খাতুনকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় তার বাড়িতে। এ ঘটনা রাতেই ছড়িয়ে পড়লে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে এলাকাবাসী। শনিবার ভোর ৬টায় এলাকাবাসী রিতুর মৃতদেহ নিয়ে শিল্পী ক্লিনিকে যায়। এ সময় গণধোলাই দেওয়া হয় ক্লিনিক মালিক আশরাফুল ও শিল্পী খাতুনকে।

এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে ভেড়ামারা থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। পরে ক্লিনিক মালিক আশরাফুল এবং শিল্পী খাতুনকে আটক করে পুলিশ।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন